কারচুপি ঠেকাতে ডিএনসিসি’র ১৮ ওয়ার্ডে সকালে ব্যালট

  • ২৮-ফেব্রুয়ারী-২০১৯ ১২:৫৯ অপরাহ্ন
Ads

:: নিজস্ব প্রতিবেদক ::

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন (ডিএনসিসি) ভোটের আগে যেকোনো ধরনের কারচুপি ঠেকাতে ভোটের দিন ভোরে ব্যালট পেপার পাঠানোর উদ্যোগ নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ডিএনসিসি’র রিটার্নিং কর্মকর্তা মো: আবুল কাসেম একথা জানান। শুধু মেয়র পদের নয় শুধু কাউন্সিলর পদে ১৮টি ওয়ার্ডে নির্বাচনের দিন সকালে ব্যলট পেপার পাঠানো হচ্ছে। উল্লেখ্য, ২৮ ফেব্রুয়ারি ডিএনসিসির মেয়র পদে উপনির্বাচন এবং সম্প্রসারিত ১৮ নতুন ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে সাধারণ নির্বাচন।

এ ব্যাপারে ডিএনসিসি’র রিটার্নিং কর্মকর্তা ইসির যুগ্মসচিব আবুল কাসেম বলেন, নির্বাচনে অনিয়ম ঠেকাতে সর্বাত্নক প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ডিএনসিসি‘র ১৮ ওয়ার্ডের অর্থ্যাৎ ৩৭ থেকে ৫৪ নম্ভব ওয়ার্ডে নির্বাচনের দিন ব্যালট পাঠানো হবে। তিনি বলেন, নির্বাচন নিয়ে যাতে কেউ কোন ধরনের প্রশ্ন তোলার সুযোগ না পাই সেজন্য নির্বাচনের আগের দিনের পরিবর্তে নির্বাচনের দিন সকালে প্রতিটি কেন্দ্রে ব্যালট পাঠানো হবে।

ইসি সূত্র জানায়, নির্বাচনের আগের যেকোনো ধরনের কারচুপি ঠেকাতে এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। এটি পরীক্ষামূলকভাবে ডিএনসিসি নির্বাচনে ১৮টি সাধারণ ওয়ার্ডে এবং ৬টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদের নির্বাচনে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

ইসি সূত্র আরো জানায়, ডিএনসিসির কাউন্সিলর পদে নির্বাচনের দিন সকালে ব্যালট পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও মেয়র পদের ক্ষেত্রে তা করা হয়নি। কারণ হিসাবে বলা হয়েছে ডিএনসিসির মেয়র পদে ভোটকেন্দ্র ১ হাজার ২৯৫টি এবং ভোটার সংখ্যা ৩০ লাখ ৩৫ হাজার ৬২১ জন। ফলে প্রথম অবস্থায় এত বড় নির্বাচনের দিন সকালে সময়মত ব্যালট পাঠানো ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যেতে পারে। এছাড়াও মেয়র পদে নির্বাচন খুব একটা প্রতিদ্বন্দ্বিতার সুযোগ নেই। বিশেষ করে প্রধান রাজনৈতিক দলগুলো এতে অংশ না নেওয়ায়। অন্যদিকে কাউন্সিলর পদে নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। পাশাপাশি কাউন্সিলর নির্বাচনে বিভিন্ন প্রার্থীরা প্রভাব বিস্তার করার আশঙ্কা রয়েছে। আর এই কারণে সকালে ব্যালট পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিযেছে কমিশন।

ডিএনসিসিতে মেয়র পদে প্রার্থী:

ডিএনসিসি উপ-নির্বাচনে মেয়র পদে ৫ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন এরা হলেন, নৌকা প্রতীকে আওয়ামী লীগের আতিকুল ইসলাম, লাঙ্গল প্রতীকে জাতীয় পার্টি থেকে শাফিন আহমেদ, বাঘ প্রতীক নিয়ে প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দল (পিডিপি) থেকে শাহিন খান, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) আনিসুর রহমান দেওয়ান, আম প্রতীক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী নর্থ সাউথ প্রপার্টিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রহিম এর প্রতীক টেবিল ঘড়ি নিয়ে নির্বাচন করছেন।

উত্তর সিটিতে কাউন্সিলর পদে প্রার্থী ও ভোটার : ঢাকা উত্তর সিটির সম্প্রসারিত ১৮ ওয়ার্ডের মধ্যে ১৮টি সাধারণ ওয়ার্ড ও সংরক্ষিত ৬ ওয়ার্ডে মোট ভোটকেন্দ্র ২৪৩টি এবং ভোটকক্ষ ১ হাজার ৪৭২টি। মোট ভোটার ৫লাখ ৯০ হাজার ৭০৫ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ২ লাখ ৯৮ হাজার ২৮৫ জন এবং নারী ভোটার ২ লাখ ৯২হাজার ৪২০ জন। এদিকে ডিএনসিসির ১৮টি সাধারণ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী ১১৬ জন, ডিএনসিসি‘র ৬ সংরক্ষিত ওয়ার্ডে নারী কাউন্সিলর প্রার্থী ৪৫ জন।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালের ২৮ এপ্রিল ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনের আড়াইবছর পর ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর ডিএনসিসিরি মেয়র আনিসুর হক লন্ডনে মারা যান। এই শূন্য আসনে মেয়র পদে উপনির্বাচন হচ্ছে। অন্যদিকে ২০১৭ সালে ডিএনসিসিতে ১৮টি নতুন ওয়ার্ড যুক্ত হয়। এই নতুন ১৮টি ওয়ার্ডে সাধারণ নির্বাচন হচ্ছে।

Ads
Ads