মুসলিম উম্মাহর শান্তি ও দেশের কল্যাণ কামনায় শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমা

  • ১৯-ফেব্রুয়ারী-২০১৯ ০১:১৯ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর একাত্মতা, ইহকাল-পরকালের শান্তি ও দেশের কল্যাণ কামনা করে শেষ হয়েছে এবারের বিশ্ব ইজতেমা। আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে মঙ্গলবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) শেষ হয় তাবলিগ জামাতের ৫৪তম বিশ্ব ইজতেমা।

মাওলানা সাদ অনুসারীদের পরিচালনায় দ্বিতীয় পর্বের তিন দিনের ইজতেমার আখেরি মোনাজাত অনুষ্ঠিত শুরু হয় সকাল সাড়ে ১১টার কিছু পর। মোনাজাত পরিচালনা করেন তাবলিগ জামাতের দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাজের মাওলানা মুহাম্মদ শামীম।

আখেরি মোনাজাতের সময় দুই হাত তুলে মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের দরবারে ফরিয়াদ জানায় লাখ লাখ মুসল্লি। আল্লাহর দরবারে আকুতি-মিনতি করে চোঁখের পানিতে বুক ভাসান ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা। ‘আমিন’, ‘আল্লাহুম্মা আমিন’ ধ্বনিতে মধ্যাহ্নের আকাশ-বাতাস মুখরিত হয়ে ওঠে।

মোনাজাতে অংশ নিতে মঙ্গলবার ভোর হতেই চারদিক থেকে লাখ লাখ মুসল্লি যানবাহন না পেয়ে পায়ে হেঁটেই ইজতেমা ময়দানস্থলে পৌঁছান। আখেরি মোনাজাতের আগেই ইজতেমা ময়দান কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। পরে মুসল্লিরা ময়দানের আশপাশের অলি-গলি, রাস্তা, পাশ্ববর্তী বাসাবাড়ি, কল-কারখানার ছাদে, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক, টঙ্গী-ঘোড়াশাল ও কামারপাড়া সড়কে অবস্থান নিয়ে আখেরি মোনাজাতে অংশ নেন। এ ছাড়াও তুরাগ নদে নৌকায় বসে দলে দলে ৫৪তম বিশ্ব ইজতেমার আখেরি মোনাজাতে অংশ নেন মুসল্লিরা। বিভিন্ন বয়সের বিভিন্ন পেশার মানুষ ভিড় ঠেলে আখেরি মোনাজাতে অংশ নেন।

মঙ্গলবার বাদ ফজর উর্দুতে বয়ান করেন দিল্লির হাফেজ ইকবাল নায়ার। পরে বাংলায় তরজমা করেন বাংলাদেশের মাওলানা মুফতি ওসামা বিন ওয়াসিফ। সকাল ১০টার দিকে উর্দু ভাষায় হেদায়েতি বয়ান করেন দিল্লির মাওলানা শামীম এবং বাংলায় তা তরজমা করেন মাওলানা আশরাফ আলী। পরে দিল্লির মাওলানা শামীম হেদায়েতির কিছু কথা বলে আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন। এবারের বিশ্ব ইজতেমায় বিভিন্ন দেশ ছাড়াও ভারতের নিজামউদ্দিন মারকাজের শীর্ষ মুরুব্বি তাবলিগ জামাতের বিশ্ব আমির মাওলানা সা’দ কান্ধলভীর পক্ষে নেতৃত্ব দিতে ৩২ সদস্যের একটি দল টঙ্গীর ইজতেমায় যোগ দেন। এতে জিম্মাদারের নেতৃত্বে দেন দিল্লির মাওলানা শামীম।

তুরাগতীরে অনুষ্ঠিত ৫৪তম বিশ্ব ইজতেমায় আখেরি মোনাজাতে শতশত নারী মুসল্লি অংশ নিয়েছেন। বিভিন্ন এলাকা থেকে আসা শতশত নারী মুসল্লি ইজতেমা ময়দানের আশপাশে, কল-কারখানা ও বাসাবাড়ির ছাদসহ বিভিন্ন স্থানে অবস্থান নিয়ে আখেরি মোনাজাতে অংশ নেন।

মাওলানা মো. আশরাফ আলী জানান, ভারত, পাকিস্তান, সৌদি আরব, কাতার, মালয়েশিয়া, ফিলিপাইন, অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও চীনসহ প্রায় ৩৬টি ভিনদেশের তাবলিগ জামাতের সহস্রাধিক বিদেশি মেহমান এবারের ইজতেমায় অংশগ্রহণ করেন।

এর আগে গত ১৫ ফেব্রুয়ারি (শুক্রবার) বাদ ফজর আমবয়ানে শুরু হয় একটানা পাঁচ দিনব্যাপী বিশ্ব ইজতেমা। গত ১৬ ফেব্রুয়ারি আখেরি মোনাজাতসহ গত দুইদিন জোবায়ের অনুসারীরা বিশ্ব ইজতেমা পরিচালনা করেন। পরে ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে ১৯ ফেব্রুয়ারি আখেরি মোনাজাতসহ ইজতেমা পরিচালনা করেন সাদ অনুসারীরা।

Ads
Ads