প্রধানমন্ত্রীকে ‘কওমি জননী’ উপাধিতে ভূষিত করলেন আলেমরা

  • ৪-Nov-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

বহুল কাঙ্ক্ষিত কওমি শিক্ষা সনদের স্বীকৃতি বাস্তবায়ন করায় রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শোকরানা মাহফিল থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন দেশের শীর্ষ আলেমরা। এই স্বীকৃতি প্রদানে মূল ভূমিকা পালন করায় তারা প্রধানমন্ত্রীর কৃতজ্ঞতা আদায় করেন। এ সময় আলেমরা প্রধানমন্ত্রীকে ‘কওমি জননী’ উপাধিতে ভূষিত করেন।

রোববার (০৪ নভেম্বর) রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ‘আল-হাইয়াতুল উলিয়া লিল জামিআাতিল কওমিয়া বাংলাদেশ’ আয়োজিত ‘শুকরানা মাহফিলে’ বক্তৃতাকালে মুফতি রুহুল আমিন এ উপাধি দেন। কওমি মাদ্রাসা শিক্ষার সর্বোচ্চ স্তর দাওরায়ে হাদিসকে স্নাতকোত্তরের স্বীকৃতি দেওয়ায় এ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

মুফতি রুহুল আমিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আপনি ‘কওমি জননী’। আপনি না থাকলে সাহাবা ও আলেম-ওলামাবিরোধী জামায়াত-মওদুদীবাদীরা এটা হতে দিতো না।

প্রধানমন্ত্রীর ছেলে ও তার তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়কেও আলেমদের সঙ্গে সম্পৃক্ত করে দেওয়ার আহ্বান জানিয়ে রুহুল আমিন বলেন, সজীব ওয়াজেদ জয়কেও আলেমদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট করে দিন।

রুহুল আমিনের বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়ে ‘আল-হাইয়াতুল উলিয়া লিল জামিআাতিল কওমিয়া বাংলাদেশ’র আরেক সদস্য মওলানা ফরিদ উদ্দিন মাসউদ বলেন, আমাদের একজন আপনাকে ‘কওমি জননী’ বলেছেন। আপনি মায়ের দরদ দিয়ে ইমামদের ৫ হাজার টাকা, মোয়াজ্জিনদের ৩ হাজার টাকা ভাতা দেবেন।

কওমি আলেমদের সহযোগিতা চেয়ে আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ আবদুল্লাহ অনুষ্ঠানে বলেন, আপনাদের একজন প্রধানমন্ত্রীকে ‘কওমি জননী’ বলেছেন। প্রধানমন্ত্রী কওমি জননী হলে আপনারা কী? সন্তান। আপনারা সন্তান হলে সন্তানের প্রতি পিতা-মাতার যেমন দায়িত্ব আছে, তেমনি জননীর প্রতিও সন্তানদের দায়িত্ব রয়েছে। আপনাদের সহযোগিতা চাই।

এর আগে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আয়োজিত শোকরানা মাহফিলে সারাদেশ থেকে কওমি মাদ্রাসার ছাত্র ও আলেমরা উপস্থিত হন। সকাল ৯টায় পবিত্র কোরআন তিলাওয়াতের মধ্য দিয়ে মাহফিল শুরু হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সভাপতিত্ব করেছেন হেফাজতে ইসলামের আমির ও চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালক মাওলানা শাহ আহমদ শফী। প্রধানমন্ত্রী সকাল পৌনে ১১টার দিকে অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছান। মঞ্চে আসন গ্রহণ করার আগে কওমি নেতাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। দাওরায়ে হাদিসকে মাস্টার্সের সমমান দিয়ে স্বীকৃতি প্রদান করায় প্রধানমন্ত্রীকে ক্রেস্ট দিয়ে সংবর্ধনা জানান শাহ আহমদ শফী। এছাড়াও শুকরিয়া আদায় করে দোয়া করেন শফী।

অনুষ্ঠান মঞ্চে কওমি আলেম ওলামাদের পাশাপাশি আওয়ামী লীগ নেতা আমির হোসেন আমু, শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল ও নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান উপস্থিত ছিলেন।

/ই

Ads
Ads