জাল নোটের বাণিজ্যে মেতেছেন তারেক রহমান!

  • ১৩-Aug-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

ভোরের পাতা ডেস্ক
কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে এবার জাল নোট ছড়িয়ে দিয়ে ইনকামের নতুন ফাঁদ পেতেছেন লন্ডনে পলাতক বিএনপি নেতা তারেক রহমান। কোরবানিতে কোটি কোটি টাকার লেনদেন হয় বাংলাদেশে। আর সেই চিন্তা থেকে বাজারে কোটি কোটি টাকার মূল্যের জাল নোট ছিটিয়ে আয়ের চেষ্টায় মত্ত হয়েছেন তিনি। জাল নোট ছিটিয়ে দেওয়ার চক্রান্তে ইতোমধ্যে পল্টন থানা বিএনপির একজন সিনিয়র নেতা সরাসরি মদদ দিচ্ছেন। জাল টাকা ভর্তি ব্যাগ নিয়ে ইতোমধ্যেই সেই নেতা বাজারে নেমে পড়েছেন বলে গোপন একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।

সূত্র বলছে, কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে পয়সা ইনকামের নতুন টার্গেট নিয়েছেন তারেক। কারণ বিদেশের মাটিতে বসে তিনি ব্যবসা করে আর্থিকভাবে ব্যাপক ক্ষতির শিকার হয়েছেন। কেননা লন্ডনে প্রতারণার বাণিজ্য চলে না। এর আগে লন্ডনে জাল টাকার বাণিজ্য বিস্তারের একটি চক্র ধরা পড়ে। সেই মামলায় তারেক রহমানের নামও শোনা গিয়েছিল। লন্ডনে জাল নোটের ব্যবসায় সুবিধা করতে না পেরে এবার দেশের মানুষকে ঠকানোর নতুন ষড়যন্ত্রে হাত দিয়েছেন তারেক। তারেক রহমানের নির্দেশে পল্টন বিএনপির নেতা আবুল হাশেম বাজারে জাল নোট ছড়ানোর কাজ শুরু করে দিয়েছে। তারেক রহমানের নির্দেশনার তদারকি করবেন রিজভী আহমেদ। কারণ রিজভী আহমেদের কোন কাজ নেই আপাতত। পার্টি অফিসে বসে অলস সময় পার করছেন তিনি। তারেক রহমানের জাল নোটের নতুন ব্যবসা দেখাশোনা করতে ইতোমধ্যেই জনৈক নেতার সাথে কয়েকবার গোপন বৈঠক করেছেন রিজভী আহমেদ। অন্য নেতাদের উপর ভরসা না পাওয়ায় রিজভীর মতো কৌশলী নেতার হাতেই গোপন এই বাণিজ্যের দায়িত্ব দেন তারেক। জাল নোটের ব্যবসা থেকে যা লাভ হবে তার ৫ শতাংশ পাবেন রিজভী। লাভের আশায় আনন্দে গদগদ হয়ে রিজভী আহমেদ মন-প্রাণ দিয়ে ব্যবসার তদারকি করছেন। নিয়মিত যোগাযোগ রাখছেন জাল নোট ছড়িয়ে দেওয়ার দায়িত্বে থাকা সেই নেতার সাথে।

সূত্র বলছে, ৯ আগস্ট সন্ধ্যায় রিজভী আহমেদের সাথে বৈঠক করে জনৈক হাশেম দুটি বড় বড় সুটকেশ নিয়ে বের হয়ে যান। নেতারা জানতে চাইলে ব্যাগ দুটোতে কাপড় আছে বলে জানান রিজভী।

এদিকে জাল নোটের বাণিজ্য বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকতা বলেন, আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পেরেছি যে, একটি বিদেশি চক্র কোরবানির ঈদে বাজারে জাল নোট ছড়িয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্র করছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় সচেতন রয়েছে। আমরা খোঁজ-খবর রাখছি। অপরাধীদের ছাড় দেওয়া হবে না।

Ads
Ads