সুস্থ থাকতে প্রতিদিন ভেষজ চা

  • ২৭-Aug-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

খুব ক্লান্ত লাগছে বা মাথাব্যথা করছে অনেক সময় থেকে- হাতে ধোয়া ওঠা এক কাপ চা নিয়ে চুমুক দিলেই যেন নিমিষেই সব যন্ত্রণা চলে গেলো। কিন্তু আমরা যারা নিয়মিত চা পানে অভ্যস্ত, তারা সাধারণত সাধারণ চায়ের বাইরে কিছু খান না। কিন্তু হারবাল বা ভেষজ চা হলে যে তা শরীরের জন্য কতোটা উপকারী হতে পারে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। ভেষজ চায়ে ক্যাফেইন থাকে না বিধায় তা নির্দ্বিধায় খাওয়া যায়। তাই সুস্থতার জন্য লিকার চায়ের পাশাপাশি ঘরে বসেই বানিয়ে নিন বিভিন্ন ভেষজ চা-

ক্যামোমাইল চা

হজম বা অ্যাসিডিটির সমস্যা আমাদের একটি কমন একটি সমস্যা। দীর্ঘদিন এই সমস্যা নিরাময় না হলে খাবার পর এক কাপ ক্যামোমাইল চা খেতে পারেন। আবার দুশ্চিন্তাগ্রস্ত থাকলে বা অফিসের কাজ শুরু করার এক কাপ ক্যামোমইলের ভেষজ চা খেয়ে নিতে পারেন। এই চা খাওয়ার পরই বেশ আরামবোধ হবে, কাজে মন বসবে, চিন্তাশক্তি ভালো থাকবে।

আদা চা

যাদের খাবারে অরুচির সমস্যা রয়েছে, তারা খাওয়ার কিছুক্ষণ আগে এক কাপ আদা চা খেয়ে দেখতে পারেন। এটি নিশ্চিত খাবারে রুচি বাড়িয়ে দিতে পারে। আবার খাবার পরে অনেকেরেই বুক জ্বালাপোড়ার সমস্যা থাকতে পারে। সেই সমস্যা দূর করতেও আদা চা বেশ কার্যকর। যাদের হাড়ের বিভিন্ন জয়েন্ট শক্ত হয়ে থাকে, ফুলে ব্যথা হয়- তারা দিনে কয়েক কাপ আদা চা খেলে ব্যথা অনেকটা উপশম হয়।

রোজমেরি চা

খাবারের বিভিন্ন রেসিপিতে স্বাদ বাড়াতে এবং সুন্দর গন্ধের জন্য রোজমেরি ব্যবহার করা হয়ে থাকে। কিন্তু এক কাপ রোজমেরি চা রাতের ভালো ঘুমের জন্য অনেকটা সাহায্য করে। কারণ এই রোজমেরি চা শরীরের পেশীকে শিথিল করতে সাহায্য করে। এছাড়া এই চা যকৃত এবং গলব্লাডারের সমস্যা কমায়।

পিপারমিন্ট চা

পিপারমিন্ট চায়ের কড়া গন্ধ খাবারের রুচি ফিরিয়ে আনতে পারে। এই চা পেটে গ্যাস, পেট ফাঁপা ইত্যাদি হজম সংক্রান্ত সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে। বমি ভাব, মাথা ঘুরানো বা মোশন সিকনেসের একটি কার্যকরী ঘরোয়া উপায় হচ্ছে পিপারমিন্ট চা নিয়মিত পান করা।

লেমন গ্রাস চা

খাবার পর ভালোভাবে খাবার হজম না হলে খুব অস্বস্তি লাগে। হজমের জন্য কার্যকর হতে পারে এই লেমন গ্রাস চা। সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে লেমন গ্রাস চায়ের সঙ্গে সামান্য লেবুর রস মিশিয়ে খেলে মুহূর্তেই শরীর চাঙা হয়ে ওঠে। এই লেমন গ্রাস চা উচ্চ রক্তচাপ কমানোর ঘরোয়া উপায়ও হতে পারে।

ল্যাভেন্ডার চা

যাদের ঘুমের সমস্যা আছে তাদের জন্য ল্যাভেন্ডার চা দারুণ কাজে লাগে। এই চা খেলে ঘুম না হওয়ার সমস্যা দূর হয়। ল্যাভেন্ডার চায়ের সৌরভ দেহ ও মনকে সতেজ করে। যার ফলে সহজেই অনিদ্রার সমস্যা কমে যায়। শরীরে কোনোরকম আড়ষ্টতা থাকলেও তা চলে যেতে পারে।

এলাচ চা

হজমের সমস্যা থাকে তাহলে এলাচ চা বেশ খানিকটা স্বস্তি এনে দিতে পারে। এই চায়ের তীব্র ঝাঁঝালো ও মিষ্টি স্বাদ পেটের ব্যথা এবং বদহজমের জন্য ঔষধের মতো কাজ করে। এই চা পেট ফাঁপার সমস্যা থাকলে সেটাও দূর করতে পারে। বমি ভাব কাটানোর জন্যও এলাচ চা খেতে পারেন।

গোলাপ পাপড়ির চা

তাজা গোলাপ পাপড়ির চা দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করার জন্য জনপ্রিয় একটি চা। কারণ এই চায়ে রয়েছে ভিটামিন সি। এই চা সাধারণত উচ্চ রক্তচাপের রোগীদের জন্য বেশি কার্যকর। এছাড়া রক্তের খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে এই চা নিয়মিত পান করে দেখতে পারেন।

Ads
Ads