রাঙ্গাবালীতে অস্ত্র ও গুলিসহ কনস্টেবল ফিরোজের লাশ উদ্ধার

  • ১৮-Dec-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: রাঙ্গাবালী(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি ::  

পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী থানার কনস্টেবল মো. ফিরোজ খানের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। সোমবার সকালে উপজেলার বুড়াগৌরাঙ্গ নদী থেকে তার লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত ফিরোজ বরিশাল উজিরপুর থানার শিকারপুর গ্রামের সালাম খানের ছেলে। রবিবার রাতে ওই নদীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গিয়ে ফেরার পথে এ ঘটনা ঘটে।

রাঙ্গাবালী থানা পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রবিবার রাতে উপজেলার গহিনখালী সংলগ্ন বুড়াগৌরাঙ্গ নদীতে একটি ট্রলার নিয়ে রাঙ্গাবালী থানার এএসআই ইয়াসিনের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি টহলদল মাদকবিরোধী অভিযানে যায়। প্রায় দেড় ঘণ্টা অপেক্ষা করার পর ওই গোপন সংবাদের সত্যতা না পাওয়ায় ট্রলার নিয়ে থানার উদ্দেশ্যে রওনা হয়।

পথিমধ্যে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি জেলে ট্রলারের (ফিশিং বোট) সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে পুলিশবাহী ট্রলারটি ডুবে গেলে ইয়াসিন ও কনস্টেবল মিজান সাতরে তীরে আসতে সক্ষম হলেও অস্ত্র ও গুলিসহ ফিরোজ খান নিখোঁজ হন। পরে পুলিশ ও স্থানীয় জেলেদের যৌথ উদ্ধার অভিযানের প্রায় ১৪ ঘণ্টা পর ঘটনাস্থলের কাছাকাছি শর্টগান ও ২০ রাউন্ড গুলিসহ ফিরোজের মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়।

এ ব্যাপারে কলাপাড়া ও রাঙ্গাবালী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জালাল উদ্দিন বলেন, ‌‘পুলিশের তিন সদস্যের একটি দল মাদক উদ্ধার অভিযানে গিয়ে ফেরার পথে দুই ট্রলারের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এসময় দুই পুলিশ সদস্য আহত অবস্থায় তীরে আসলেও ফিরোজকে তখন পাওয়া যায়নি। পরে ঘটনাস্থলে গিয়ে অস্ত্র ও গুলিসহ আমরা ফিরোজের লাশ উদ্ধার করি।’

 

/কে 

Ads
Ads