নির্বাচনের মূল বাজেট ৭০০ কোটি: অর্ধেকের বেশি চায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী!

  • ২৮-Nov-২০১৮ ১২:০০ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এবার মূল বাজেট ধরা হয়েছে ৭০০ কোটি টাকা। এর মধ্যে নির্বাচন পরিচালনায় ৩০০ এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ৪০০ কোটি টাকা ব্যয় করার পরিকল্পনা রয়েছে ইসির। কিন্তু মূল নির্বাচনি বাজেটের অর্ধেকের বেশি বরাদ্দ চেয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে। 

মঙ্গলবার (২৭ নভেম্বর) আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বাজেট বরাদ্দের বিষয়ে বৈঠকে করে নির্বাচন কমিশন। সেই বৈঠকে বিষয়টি উঠে আসে।

ওই বৈঠক সূত্রে জানা যায়, মূল নির্বাচনি বাজেট ৭০০ কোটি টাকা হলেও এখন পর্যন্ত তিন বাহিনীই চেয়েছে এর ৫১২ কোটি টাকা। এর মধ্যে ইসির কাছে নির্বাচনে দায়িত্ব পালনের জন্য পুলিশ ও র‌্যাব ২২৪ কোটি, বিজিবি ৫৮ কোটি ও আনসার ২৩০ কোটি টাকা বরাদ্দ চেয়েছে। তবে সশস্ত্র বাহিনী ও কোস্ট গার্ড এখন পর্যন্ত ইসির কাছে কোনো বরাদ্দ চায়নি।

ওই বৈঠক সূত্রে জানা যায়, মূল নির্বাচনি বাজেট ৭০০ কোটি টাকা হলেও এখন পর্যন্ত তিন বাহিনীই চেয়েছে এর ৫১২ কোটি টাকা। এর মধ্যে ইসির কাছে নির্বাচনে দায়িত্ব পালনের জন্য পুলিশ ও র‌্যাব ২২৪ কোটি, বিজিবি ৫৮ কোটি ও আনসার ২৩০ কোটি টাকা বরাদ্দ চেয়েছে। তবে সশস্ত্র বাহিনী ও কোস্ট গার্ড এখন পর্যন্ত ইসির কাছে কোনো বরাদ্দ চায়নি।

বৈঠক শেষে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, আজকে আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বাজেট সংক্রান্ত আলোচনা করেছি। আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে বলেছি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে বাজেট দাখিল করতে। আমরা আনসার বাহিনীকে অগ্রিম শত ভাগ টাকা বরাদ্দ দেব। অন্যান্য বাহিনীগুলোকে আমরা অগ্রিম ৫০ ভাগ বরাদ্দ দেব। এ বছর আমরা নতুন একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে যাচ্ছি। সেটি হলো এ বছর থেকে গ্রাম পুলিশকে নির্বাচনি কাজে ব্যবহার করব।

এ বিষয়ে ইসির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, নির্বাচনে আইনশৃঙ্খলার কোন বাহিনী কতদিন ও তাদের কতজন সদস্য দায়িত্ব পালন করবেন, তা নির্ধারণ হবে ১৩ ডিসেম্বর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে ইসির সভায়। তার আগে গত নির্বাচনের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বাজেট তৈরির জন্য বলেছে ইসি।

নির্বাচনের বাজেট শাখা সূত্রে জানা যায়, পঞ্চম জাতীয় সংসদে আইনশৃঙ্খলা খাতে বরাদ্দ ছিল ১৭ কোটি টাকা, ষষ্ঠ জাতীয় সংসদে ২৯ কোটি, সপ্তম সংসদে ১৮ কোটি, অষ্টম সংসদে ৪২ কোটি, নবম জাতীয় সংসদে ৯৮ কোটি ও দশম সংসদে ১৮৩ কোটি টাকা।

এ বছর তুলনামূলকভাবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জন্য বেশি বরাদ্দ রাখা হয়েছে বা তারা বেশি বরাদ্দ চাইছে কি না জানতে চাইলে মোখলেছুর রহমান বলেন, তারা চাক, চাইতে থাকুক। আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বরাদ্দ দেব।

 

/কে 

Ads
Ads