রপ্তানি খাতে বিশেষ অবদানের জন্য সিআইপি কার্ড পাচ্ছেন ড. কাজী এরতেজা হাসান

  • ৯-Sep-২০১৯ ০৫:৫৫ অপরাহ্ন
Ads

:: অর্থনৈতিক প্রতিবেদক ::

দেশের দু’টি জাতীয় দৈনিকের সম্পাদক ও প্রকাশক হিসাবে প্রথমবারের মতো ব্যবসায়ী হিসাবে রপ্তানি খাতে বিশেষ অবদানের জন্য সিআইপি (বাণিজ্যিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি) হিসাবে কার্ড পাচ্ছেন ড. কাজী এরতেজা হাসান। ভোরের পাতা ও দ্যা পিপলস টাইমস সম্পাদক ও প্রকাশক ড. কাজী এরতেজা হাসান দেশের শীর্ষ ব্যবসায়ীদের সংগঠন এফবিসিসিআই পরিচালক হিসাবে এ কার্ড অর্জন করেছেন। 

আগামী ১৮ সেপ্টেম্বর রাজধানীর একটি অভিজাত হোটেলে জাতীয় রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তার হাতে এ কার্ড তুলে দেয়া হবে বলে জানা গেছে। বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুন্সি সম্মানজনক এ কার্ড তুলে দিবেন বলে নিশ্চিত করেছেন ইপিবির উপ পরিচালক ফয়জুল হক। 

২০১৭ সালের পণ্য রপ্তানি ও বৈদেশিক বাণিজ্যে বিশেষ অবদানের জন্য ড. কাজী এরতেজা হাসানকে এ সম্মানজনক কার্ড প্রদান করা হচ্ছে বলেও জানা গেছে। বাংলাদেশ ল্যান্ড ডেভেলপারস এসোসিয়েশনের সিনিয়র সহ-সভাপতি হিসাবে তাকে এ কার্ডের জন্য মনোনীত করা হয়েছে। বৈদেশিক বাণিজ্যে ইরানের সঙ্গে অর্থনৈতিক সম্পর্ক স্থাপনে ড. কাজী এরতেজা হাসানের ভূমিকা প্রশংসনীয়। কেননা তিনি ইরান-বাংলাদেশ চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ড্রাটিজের প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট। এছাড়া ড. কাজী এরতেজা হাসান ভোরের পাতা গ্রুপ অব ইন্ড্রাটিজ এবং কাজী গ্রুপ অব ইন্ড্রাটিজের চেয়ারপারসন হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। 

উল্লেখ্য, ড. কাজী এরতেজা হাসান এর আগেও দেশে বিদেশে নানা সম্মানজনক পুরষ্কারে ভূষিত হয়েছেন। চলতি বছর জুন মাসে জাতিসংঘের বিশ্ব শান্তি সম্মেলনে বাংলাদেশে মানবাধিকার প্রতিষ্ঠায় বিশেষ অবদানের জন্য তাকে ‘ডক্টর অব হিউম্যানিটি’ উপাধিতে ভূষিত করা হয়। তিনি র্দীর্ঘ ১৬ বছরেরও বেশি সময় ধরে বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস ডেভেলপমেন্ট কমিশনের চেয়ারম্যান হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়া, ড. কাজী এরতেজা হাসান বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় শিল্প-বাণিজ্য ও ধর্ম বিষয়ক উপকমিটির সদস্য। 

সম্মানজনক সিআইপি কার্ড প্রাপ্তি উপলক্ষ্যে এফবিসিসিআই পরিচালক ড. কাজী এরতেজা হাসান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের বুকে উন্নয়নের রোল মডেল। এ অবস্থায় বৈদেশিক বাণিজ্যে অবদানের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে আমাকে যে সম্মান দেয়া হয়েছে তাতে আমি গর্বিত। ভবিষ্যতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমি আমার নিজ জেলা সাতক্ষীরাতে একটি বিশেষ শিল্পাঞ্চল প্রতিষ্ঠা করার কাজ এখন থেকেই শুরু করেছি। নিজ এলাকার মানুষের ভাগ্যোন্নয়নের জন্য আমার চেষ্টা আমৃত্যু থাকবে বলেও জানান সাতক্ষীরা সদরের সুলতানপুরের এ তরুণ উদ্যোক্তা।

Ads
Ads