লোপাটের শতকোটি টাকা ভাগাভাগি নিয়ে ওয়ার্ল্ডমিশনের পার্টনারদের মধ্যে মারামারি

  • ২৪-Aug-২০১৯ ০৭:৩৭ অপরাহ্ন
Ads

:: উৎপল দাস ::

বিএনপি থেকে নির্বাচিত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র আব্দুল মান্নানের ঘনিষ্ঠ সহচর ছিলেন প্রতারক জাকির হোসেন। এরপর ক্ষমতার পালা বদলে এখন আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে তিনি নিজেকে সরকারদলীয় লোক পরিচয় দেন। এমনকি লাখো মানুষের কাছ থেকে প্রায় ২ শত কোটি টাকার বেশি আত্নসাৎ করে ভয়ংকর প্রতারণার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন রমরমা।

এছাড়া অবৈধ টাকায় আপন ছোট ভাই দোলোয়ার হোসেনকে গাজীপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বানিয়েছিলেন বদিউজ্জামান সোহাগ এবং সিদ্দিকী নাজমুল আলমের সময়ে। অবৈধ ও মেয়াদোর্ত্তীণ জেলা ছাত্রলীগের কমিটির সভাপতি হিসাবে ছোট ভাইয়ের রাজনৈতিক পরিচয়কে কাজে লাগিয়ে বিদেশে অর্থপাচারও করেছেন নিয়মিত। ওয়ার্ল্ডমিশন ২১ নামের একটি ভূঁইফোড় কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসাবে জাকির হোসেনের নানা অপকর্ম নিয়ে ভোরের পাতার ধারাবাহিক প্রতিবেদনের আজ থাকছে দ্বিতীয়পর্ব। 

অনুসন্ধানে জানা গেছে, জাকির হোসেন ওয়ার্ল্ড মিশন২১ কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক হয়েও কোম্পানির চেয়ারম্যান বগুড়ার আশরাফুল আলম,  পরিচালক চট্টগ্রামের কামরুল ইসলাম চৌধুরী এবং ভোলার জিয়াউর রহমান জিয়ার মধ্যে গ্রাহকদের কাছ থেকে এ্যাডভান্স সেলিংয়ের নাম করে ২ শতাধিক কোটি লোপাটের টাকার ভাগাভাগি নিয়ে মারামারি পর্যন্ত হয়েছে। এরপর এই চারজনের মধ্যে প্রতারক কোম্পানির চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাকির হোসেন মিলে গিয়ে বাকি দুইজনের ভাগের টাকা মেরে দেন। 

লাখো লাখো গ্রাহকের কষ্টের টাকা দিয়ে চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম নিজের ছেলের নামে গাজীপুরে একটি পোশাক কারখানা করেছেন। এছাড়া বগুড়া ও গাজীপুরেও আলিসান দু'টি বাড়ি করেছেন। কিন্তু কয়েক বছর আগেও তার আর্থিক অবস্থা মোটেও ভালো ছিল না বলে জানিয়েছেন ওয়ার্ল্ডমিশনের পরিচালক ভোলার জিয়াউর রহমান জিয়া। তিনি আরো বলেন, আশরাফুলের চেয়ে বড় বেঈমান হচ্ছে এমডি জাকির হোসেন। এই জাকির হোসেনের ক্যাশিয়ার কাওসার প্রতিমাসেই বিদেশে টাকা পাচার করেন বলেও অভিযোগ করেন। 

জিয়াউর রহমান জিয়া আক্ষেপ করে বলেন, গ্রাহকদের সাথে প্রতারণা করেই এত কোটি কোটি টাকা এনে দিয়েছি; কিন্তু আশরাফুল আর জাকির মিলে আমাদের টাকা গিলে ফেলেছে। এখন যেহেতু টাকাগুলো অবৈধ তাই কিছু করতে পারছি না। তবে জীবনে কোনোদিন সুযোগ আসলে তার পুরোপুরি ব্যবহার করে টাকা উঠিয়ে নিবেন বলেও হুমকি দেন জিয়া। 

অবৈধ টাকা দিয়ে প্রতারক জাকির হোসেন কি কি সম্পদ গড়েছেন এমন প্রশ্নের জবাবে প্রতারিত জিয়াউর রহমান বলেন, গাজীপুরে কমপক্ষে ৫০ বিঘা জমির মালিক হয়ে গেছেন জাকির হোসেন। এছাড়া হুন্ডির মাধ্যমে বিদেশে কাউসারের মাধ্যমে টাকাও পাচার করেছেন এবং এখনো নিয়মিত করে যাচ্ছেন। 

এসব অভিযোগের বিষয়ে জানতে ওয়ার্ল্ডমিশন২১ লিমিটেডের চেয়ারম্যান আশরাফুল আলম ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাকির হোসেন দুজনেরই ব্যবহৃত ফোন নম্বর বন্ধ পাওয়া গেছে। এমনকি ওয়াল্ডমিশনের পরিচালক জিয়াউর রহমান জিয়া বলেন, ওরা জাত প্রতারক। তাই দু'দিন পর পর নম্বর পরিবর্তন করেন। 

চলবে...

Ads
Ads