আজ শুভ জন্মাষ্টমী,সকলকে জানাই জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা : আশীষ মল্লিক

  • ২৩-Aug-২০১৯ ০১:৪২ পূর্বাহ্ণ
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

শুভ জন্মাষ্টমী আজ। ভগবান শ্রীকৃষ্ণের অপ্রাকৃত লীলা কে কেন্দ্র করেই পালিত হয় জন্মাষ্ঠমীর উৎসব।এই দিনে মথুরা নগরীতে অত্যাচারী রাজা কংসের কারাগারে বন্দী দেবকী ও বাসুদেবের বেদনাহত ক্রোড়ে মহাপুণ্য অষ্টমী তিথিতে জন্ম নিয়েছিলেন পরমেশ্বর ভগবান শ্রীকৃষ্ণ।

কৃষ্ণের জন্মদিন হিসেবে পালিত জন্মাষ্টমী উপলক্ষে  আলোড়ন নিউজের পক্ষ থেকে সকলকে জানাই শুভ জন্মাষ্টমী। একই সাথে সকলকে জন্মাষ্টমীর শুভেচ্ছা।

শুভেচ্ছা বার্তায় আশীষ মল্লিক বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে জন্মাষ্টমী ঘিরে ডিএমপি’র নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা থাকায় কোনও প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটবে বলে আশাবাদী।

শুধু দুষ্টের দর্শনই নয় এক শান্তিময় বিশ্ব প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রতি বছর শ্রীকৃষ্ণের জন্মদিন তথা জন্মাষ্টমী আমাদের মাঝে নিয়ে আসে জাতি ধর্ম নির্বিশেষে এক শুভ আনন্দময় বার্তা।

হিন্দুরা বিশ্বাস করেন, কৃষ্ণ ছিলেন স্বয়ং ঈশ্বর। শ্রীকৃষ্ণ পৃথিবীকে কলুষ মুক্ত করতে কংস, জরাসন্ধ ও শিশুপালসহ বিভিন্ন অত্যাচারিত রাজাদের ধ্বংস করেন এবং ধর্মরাজ্য প্রতিষ্ঠা করেন।

সনাতন ধর্ম মতে, পৃথিবী থেকে দুরাচারী দুষ্টদের দমন আর সজ্জনদের রক্ষার জন্যই তাদের মহাবতার ভগবান শ্রীকৃষ্ণ এই দিনে স্বর্গ থেকে পৃথিবীতে আবির্ভূত হয়েছিলেন। পাশবিক শক্তি যখন সত্য সুন্দর ও পবিত্রতাকে গ্রাস করতে উদ্যত হয়েছিল, তখন সেই অসুন্দরকে দমন করে জাতিকে রক্ষা এবং শুভ শক্তিকে প্রতিষ্ঠার জন্য ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব ঘটে।

হিন্দু পঞ্জিকা মতে, সৌর ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের অষ্টমী তিথিতে যখন রোহিণী
নক্ষত্রের প্রাধান্য হয়, তখন জন্মাষ্টমী পালিত হয়। উত্সবটি গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডার অনুসারে, প্রতি বছর মধ্য-আগস্ট থেকে মধ্য-সেপ্টেম্বরের
মধ্যে কোনো এক সময়ে পড়ে।

আজ ঢাকেশ্বরী মন্দিরে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনায় সকালে গীতাযজ্ঞ,বিকেলে ঢাকার ঐতিহাসিক ঢাকেশ্বরী মেলাঙ্গন থেকে বের করা হবে বর্ণাঢ্য-মনোলোভা পরমেশ্বর শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী মিছিল ও রাতে কৃষ্ণপূজা এবং পরের দিন  আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হবে।

ঐতিহাসিকদের বিবেচনায় খ্রিস্টপূর্ব ৯০০-১০০০ সালে সনাতম ধর্মের প্রাণপুরুষ শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব ঘটে। তার জন্মের সময় এই বিশ্বব্রহ্মা- পাপ ও অরাজকতায় পরিপূর্ণ ছিল। তাই মানব জাতিকে রক্ষার জন্য ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব ঘটে। নানা ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে শ্রীকৃষ্ণ মানব জাতির কাছে জীবন ধারণের অনন্য উদাহরণ রেখে গেছেন।

শ্রীকৃষ্ণের শিক্ষা হলো- সংঘর্ষ ও অন্যায়কে পরাভূত করে শান্তি প্রতিষ্ঠা করা। এই পবিত্র দিনে সকল অকল্যাণ ও অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে অন্তর আত্মাকে জাগ্রত করার শপথ নেয়া হোক অঙ্গীকার।

Ads
Ads