সড়ক-মহাসড়কে কোনও সমস্যা নেই, সমস্যা ফেরিঘাটে: কাদের

  • ৯-Aug-২০১৯ ০২:০৮ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এবারকার ঈদযাত্রায় সড়ক-মহাসড়কে কোনও সমস্যা নেই। সমস্যা হচ্ছে ফেরিঘাটে। সমস্যা হচ্ছে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটে, নদীতে প্রচণ্ড স্রোত। মাওয়া থেকে জাজিরা প্রান্তেও প্রচণ্ড স্রোত। সেখানে মাঝে মাঝে ফেরি বন্ধ হয়ে যায়। নদীর স্রোতের কারণে ফেরি চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। যার কারণে গাড়ি আসতে পারছে না।

শুক্রবার (৯ আগস্ট) সকালে গাবতলী বাস টার্মিনালে ঈদযাত্রা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে এসে এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা আশা করছি পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে। গতকাল ভারী বর্ষণ ছিল, সিগন্যাল (সতর্ক সংকেত) ছিল, নিম্নচাপের কারণে ঘরমুখো যাত্রা স্বস্তিদায়ক ছিল না। তবে আজ যাত্রা স্বস্তিদায়ক আছে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া আর ভারী বর্ষণ না হলে আমার মনে হয় ঈদযাত্রা স্বস্তিদায়ক হবে। কারণ রাস্তায় কোনও সমস্যা নেই, সমস্যা শুধু ফেরিঘাটে।

তিনি আরও বলেন, অতিরিক্ত ভাড়ার বিষয়ে আমরা কঠোরভাবে মনিটরিং করছি। এখানে ভিজিলেন্স টিম আছে। পুলিশ, র‍্যাব, বিআরটিএ কাজ করছে। রংপুরগামী একটি পরিবহন অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছিল বলে তাদের দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অতিরিক্ত ভাড়া কোনও ভাবেই সহ্য করা হবে না।

দেশের উন্নত হওয়ার পথে থাকায় ডেঙ্গু বাড়ছে- সরকারের একজন মন্ত্রীর এমন মন্তব্যের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে ওবায়দুল কাদের বলেন, কে ব্যক্তিগতভাবে কী বললো সেটা ব্যাপার না। আসল কথা হচ্ছে আমরা যা বলেছি তা করছি কিনা। আমি বিশ্বাস করি ডেঙ্গু কিংবা এডিস মশা মানুষের চেয়ে শক্তিশালী কিছু নয়। আমরা নির্ভয়ে অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেছি, এটাও আমরা পারবো। দুই একজনের ছিটেফোঁটা মন্তব্য দিয়ে তো আমাদের সার্বিক কর্মকাণ্ডকে মূল্যায়ন করা যাবে না।

কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী গতকাল বলেছেন, ডেঙ্গু নিয়ে-এডিস মশা নিয়ে মৌসুমি প্রস্তুতি নিলে চলবে না। সারা বছরেই সচেতনতা প্রোগ্রাম এবং অ্যাকশন প্রোগ্রাম থাকতে হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, আপনারা জানেন, ডেঙ্গু জ্বর সারাদেশে আতঙ্ক ছড়িয়ে দিয়েছে। মানুষের মাঝে এডিস মশার ভয় কাজ করছে। এজন্য ঘরে যাওয়ার আনন্দ তো আছেই, তার সঙ্গে কিছু সমস্যাও আছে। আমরা যাত্রা স্বস্তিদায়ক করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করবো। আমরা সর্বাত্মকভাবে সব ডিপার্টমেন্ট নিয়ে ডেঙ্গু মোকাবিলায় প্রস্তুত। প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার পর কর্মতৎপরতা আরও জোরদার হয়েছে। এই ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবিলায় আমাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। মশা মারার ওষুধ এরইমধ্যে এসে গেছে এবং ওষুধ ছিটানোর কাজটাও শুরু হয়ে যাবে। আমরা আশা করি কার্যকর ওষুধ প্রয়োগের পর ধীরে ধীরে ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসবে। এখনই নিয়ন্ত্রণে এসেছে একথা আমি দাবি করতে পারবো না। তবে ঈদের মধ্যে যাতে পরিস্থিতি জটিল না হয়, নিয়ন্ত্রণের বাইরে না যায়, সেজন্য সরকারের পক্ষ থেকে আমরা সর্বাত্মক প্রয়াস অব্যাহত রেখেছি।

Ads
Ads