ডেঙ্গু টেস্ট: পপুলারকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা

  • ২৯-Jul-২০১৯ ০৭:৫২ অপরাহ্ন
Ads

 

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

ডেঙ্গু পরীক্ষায় নিয়ে রোগীদের সঙ্গে ‘প্রতারণার’ অভিযোগে রাজধানীর ধানমন্ডির পপুলার মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালকে জরিমানা করা হয়েছে। তারা সরকারি নির্ধারিত ফির চেয়ে বেশি না রাখলেও ৫০ হাজার টাকা জরিমানার মুখে পড়েছে বিশেষ এক কারণে।

রবিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, ডেঙ্গু শনাক্তের তিনটি পরীক্ষার দুটি করতে হবে ৫০০ টাকায়, একটি করতে হবে ৪০০ টাকায়। পপুলারে পরীক্ষা করতে যাওয়া রোগীদেরকেও এই পরিমাণ টাকাই দিতে হয়েছে। তবে তারা বিল হিসেবে এক হাজার দুইশ বা দেড় হাজার টাকা রেখেছে। আর বাড়তি এই টাকাটা ডিসকাউন্ট হিসেবে দেখিয়েছে।

সোমবার (২৯ জুলাই) ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের একটি দল পপুলারে গিয়ে এভাবে অতিরিক্ত বিল ধরে বাকিটা ছাড় হিসেবে দেখানোকে আইনবিরুদ্ধ হিসেবে চিহ্নিত করে। 

অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, ডেঙ্গু নির্ণয়ে সরকার নির্ধারিত মূল্য হাসপাতালগুলো রাখছে কি-না সেটা তদারকি করতে পপুলার হাসপাতালে যাওয়া হয়। সেখানে গিয়ে দেখা যায় ডেঙ্গু ‘এনএসআই এজি’ পরীক্ষায় মুল্য ধরে রেখেছে ১২’শ টাকা। অন্য সবগুলো হাসপাতাল সরকার নির্ধারিত মূল্য রাখছে এবং বিলের সফটওয়ার আপডেট করেছে। কিন্তু এই হাসপতালটি আজকেও তাদের বিলের সফটওয়ার আপডেট করেনি। তাদের বিলে আবার লিখে দিচ্ছে ‘ছাড়’ সাতশ। অথ্যাৎ প্রতিটি ডেঙ্গু টেস্টে তারা ১২শ টাকায় সাতশ টাকা করে ছাড় দিচ্ছে। তার মানে এখানে সরকার নির্ধারিত মূল্য রাখা হচ্ছে না। তাদের বিলে লিখে দিয়েছে ডেঙ্গু রোগীদের জন্য বিশেষ ছাড়’। তার মানে সরকার কিছু করছে না, তারাই ছাড় দিচ্ছে। এখানে যে সরকারের নির্দেশনা আছে এই স্লিপ দেখলে কেউ ধরতে পারবে না। কিন্তু আমাদের প্রশ্ন আপনারা ছাড় দেবেন কেন? সরকার যেই মুল্য দিয়েছে সেটা অবশ্যই আপনারা নিতে বাধ্য। অন্যান্য সব প্রতিষ্ঠান তাদের সফটওয়ার পরিবর্তন করেছে কিন্তু পপুলার সেটা করেনি।

ভোক্তা অধিকারের এই কর্মকর্তা বলেন, জনগণের সরকার এই ক্রান্তিকালীন সময় সবাইকে নিয়ে বসে ডেঙ্গু পরীক্ষার এই মুল্য নির্ধারণ করেছে। কিন্তু নামিদামি এই প্রতিষ্ঠানটি সেটা মানছে না। বরং বোঝাচ্ছে পপুলার ডেঙ্গুরোগীদের জন্য ছাড় দিচ্ছে। এটা স্পষ্টভাবে একটা অনিয়ম এবং অনৈতিকতা। তাই আমরা তাদেরকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করেছি এবং সতর্ক করা হয়েছে।

এর আগে ধানমন্ডির স্কয়ার হাসপাতাল, বিআরবি হাসপাতাল, ইবনে সিনা হাসপাতালে অভিযানে যায় ভোক্তা অধিকারের দল। সেখানে নির্ধারিত টাকা রাখতেই দেখা যায়।

Ads
Ads