আরডিডিএল ২৬তম জাতীয় জুনিয়র কুস্তি প্রতিযোগিতা-২০১৯

  • ২১-Jul-২০১৯ ০৯:৪৬ অপরাহ্ন
Ads

কুস্তি ফেডারেশনের সঙ্গে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত থাকব : ড. কাজী এরতেজা হাসান

:: জহির ভূইয়া ::

বাংলাদেশ অ্যামেচার রেসলিং ফেডারেশনের ব্যবস্থাপনায় ও আরডিডিএলের পৃষ্ঠপোষকতায় আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে রাজধানীর হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামে শুরু হবে দুই দিনব্যাপী (২৩ ও ২৪ জুলাই) ‘আরডিডিএল ২৬তম জাতীয় জুনিয়র কুস্তি প্রতিযোগিতা-২০১৯’। যদিও আগের প্রতিযোগিতাও আরডিডিএলের পৃষ্ঠপোষকতায় অনুষ্ঠিত হয়েছে, এবারও তাই প্রতিযোগিতায় দেশের ৮টি বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে বালক ও বালিকা দুই বিভাগে সর্বমোট ২০০ জন খেলোয়াড় অংশগ্রহণ করবে।

প্রতিযোগিতায় বালকরা লড়বে ৪১-৪৫, ৪৮, ৫১, ৫৫, ৬০, ৬৫, ৭১, ও ৮০ কেজি মোট ৮টি ওজন শ্রেণিতে। বালিকারা লড়াই করবে ৩৬-৪০, ৪৩, ৪৬, ৪৯, ৫৩, ৫৭, ৬১, ৬৫ কেজি মোট ৮টি ওজন শ্রেণিতে। প্রতিযোগিতা উপলক্ষে গতকাল রোববার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামের ২য় তলায় ঢাকা মহানগরী ফুটবল লীগ কমিটির সভাকক্ষে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান আরডিডিএলের চেয়ারম্যান ড. কাজী এরতেজা হাসান, সিআইপি, ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক তাবিউর রহমান পালোয়ান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেসবাহ উদ্দিন আজাদ, সদস্য  একেএম আবদুুল মবিন ও মাসুদুর রহমান মুন্নাসহ অন্যরা। সংবাদ সম্মেলনে জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত কুস্তির সঙ্গে থাকার ঘোষণা দেন পৃষ্ঠপোষক আরডিডিএলের চেয়ারম্যান ড. কাজী এরতেজা হাসান।

সংবাদ সম্মেলনে পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান আরডিডিএলের চেয়ারম্যান ড. কাজী এরতেজা হাসান, সিআইপি বলেন, ‘অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম মহাসচিব আশিকুর রহমান মিকু সম্পর্কে আমার মামা হন। আর মামার বন্ধু এই ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক। মামার আবদার বা মামার ভালোবাসা যাই বলুন না কেন, আমি আসলে খেলা ভালোবাসি। বিশেষ করে ক্রিকেট পছন্দ করি। ২০১৬ সালে আমি রংপুর রাইডার্সের একক মালিক ছিলাম। ক্রিকেট থেকে কুস্তিতে আসার কারণ খেলাকে ভালোবাসার কারণেই। আমার পরিকল্পনা, বাংলাদেশে কুস্তিকে কীভাবে এগিয়ে নেওয়া যায়, সেই পথে এগুনো। জেলাভিত্তিক কুস্তিকে কীভাবে এগিয়ে নেওয়া যায়- আমাদের অনেক পরিকল্পনা আছে। আগের অনুষ্ঠানে আমাদের পাশে প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন বন উপমন্ত্রী (সাবেক) আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব ভাই, তিনি এখন যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণলায়ের সংসদীয় কমিটির চেয়ারম্যান। এছাড়া আমি জাহিদ হাসান রাসেল ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলেছি। আমাদের অনেক বড় পরিকল্পনা আছে। আর পরিকল্পনা-স্বপ্ন থাকলে কীভাবে বাস্তবায়ন হয়, সেটা আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের শিখিয়েছেন। স্বপ্ন যদি আমরা দেখতে না পারি, তাহলে এটা কিভাবে বাস্তবায়ন হবে? আমাদের প্রথম স্বপ্নটা হচ্ছে, কুস্তি ফেডারেশনের একটি প্লট ও নিজস্ব ভবন হবে। আমার মামা ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক জীবিত থাকা অবস্থায় এটা বাস্তবায়ন হবে ইনশাআল্লাহ। আপনাদের কাছ থেকে আমরা সহযোগিতা চাই। এই ফেডারেশনে আমি নতুন, কিন্তু মামা পুরাতন। তাই আপনাদের কাছে যদি বিশেষ কোনো পরিকল্পনা থাকে, সেটা আমাদের দিন। আমি ইরান-বাংলাদেশ জয়েন্ট চেম্বারের প্রেসিডেন্ট। আমি ইরান অ্যাম্বাসেডরের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা এই খেলাটা নিয়ে খুবই আগ্রহী। আমি আশা করছি, কোরবানি ঈদের পর একটি টিম নিয়ে আমরা ইরান সফরে যাব। সেখানে আমরা একটা টুর্নামেন্ট আয়োজন করব ইনশাআল্লাহ। ডে বাই ডে কুস্তি উন্নতি করবে ইনশাআল্লাহ। আমি আগে ঘোষণা দিয়েছিলাম ১ বছরের জন্য কুস্তি ফেডারেশনের সকল স্পন্সর দেবো। আমি আজ ঘোষণা করছি যত দিন বেঁচে আছি, যত দিন আমার মামা বেঁচে আছেন, যত দিন আমার চারপাশের কাছের মানুষগুলো বেঁচে আছে, তত দিন ইনশাআল্লাহ কুস্তির সঙ্গেই আছি।’

নতুন ভবন প্রসঙ্গে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক তাবিউর রহমান পালোয়ান বলেন, ‘নতুন ভবনের জন্য আমরা ক্রীড়া পরিষদের কাছে দুটা জমির আবেদন করেছি। এখন যেটা দেয় সেটাতে আমরা নতুন ভবন তৈরি করে নেব।’ কিন্তু কুস্তি ফেডারেশনের ইরান সফরের তারিখ জানতে চাইলে ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক তা জানাতে চাইলেন না। তিনি বলেন, ‘আমি ঈদের পর (সেপ্টেম্বর) আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে জানাব।’ সংবাদ সম্মেলনে কর্মকর্তারা জানান, এবারের প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন, রানার্স আপ ও তৃতীয় স্থান অধিকারী দলকে ট্রফি ও মেডেল প্রদান করবে ফেডারেশন। 

এর সঙ্গে স্পন্সরের পক্ষ থেকে পদকপ্রাপ্ত খেলোয়াড়দের বৃত্তি প্রদান করার ঘোষণা দেন আরডিডিএলের চেয়ারম্যান ড. কাজী এরতেজা হাসান। ক্রিকেটে যে ধরনের সাহায্য করেছেন তার এক ভাগও এখানে করলে কুস্তি আগামী সাফ গেমসে গোল্ড পাবে নিশ্চিত। এ বিষয়ে মন্তব্য জানতে চাইলে আরডিডিএলের চেয়ারম্যান ড. কাজী এরতেজা হাসান বলেন, ‘ক্রিকেট আমি বুঝি, আমি ক্রিকেট প্রথম বিভাগ খেলেছি। কিন্তু কুস্তির সঙ্গে আমার প্রেম ভালোবাসা মাত্র শুরু। বুঝতে একটু সময় লাগবে। তবে সঙ্গে মামা আছেন, সমস্যা হবে না। আমি কুস্তির উন্নয়নের জন্য বড় বড় কোম্পানির সঙ্গে কথা শুরু করেছি। যতটা সম্ভব আমি কুস্তির উন্নয়নে জন্য করব।’  

সোমবার (২২ জুলাই) বিকেল ৪টা থেকে ফেডারেশনের কক্ষে অংশগ্রহণকারী খেলোয়াড়দের দৈহিক ওজন গ্রহণ করা হবে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়। 

উল্লেখ্য, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শিক সন্তান হিসাবে সুস্থতার প্রতীক কুস্তি খেলার পাশে থাকার ঘোষণা দিয়েছেন ড. কাজী এরতেজা হাসান

Ads
Ads