ছাত্রলীগে যে ৩৫ জনের পদ শূণ্য ঘোষণা করা হচ্ছে ! (তালিকাসহ)

  • ৮-Jun-২০১৯ ০৮:৪১ অপরাহ্ন
Ads

:: উৎপল দাস ::

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। উপমহাদেশের অন্যতম বৃহৎ এই ছাত্রলীগের চলমান কমিটিতে বিবাহিত, মাদক ব্যবসায়ী, বিএনপি-জামায়াত পরিবারের সদস্য, শিবিরকর্মী থেকে শুরু করে নানা অপকর্মের সঙ্গে জড়িতরা কোনো না কোনোভাবে ঠাঁই পেয়েছেন। তাদের বাদ দিয়ে যোগ্যদের পদায়ন করার জন্য টানা দুই সপ্তাহ ধরে আন্দোলনও করে যাচ্ছেন পদবঞ্চিতরা।  এদিকে, রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও গোলাম রাব্বানীর নেতৃত্বাধীন কমিটিতে প্রথমে ১৯ জন বিতর্কিতদের নামহীন তালিকা দিয়ে পদশূণ্য করার পরও সেই তালিকায় আরো ১৬ জন যোগ হয়েছেন। ফলে সংখ্যাটি এই মুহুর্তে ৩৫ জনে দাঁড়িয়েছে বলে ভোরের পাতাকে নিশ্চিত করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও ছাত্রলীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা জাহাঙ্গীর কবির নানক।

এ তালিকায় কারা রয়েছেন তা নিয়েও ছাত্রলীগের পদপ্রাপ্ত  এবং পদবঞ্চিতদের মধ্যে বিরাজ করছে চরম উত্তেজনা। পদ হারানো ভয়ে, যারা আসলেই বিতর্কিত তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে গেলেও ভেতরে ভেতের পদ হারানোর আতংকে রয়েছেন। ছাত্রলীগ নিয়ে আওয়ামী লীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত কয়েকজন নেতা ও ছাত্রলীগের শীর্ষমহলে যোগাযোগ করে ইতিমধ্যে প্রস্তুতকৃত ৩৫ জন বিতর্কিত নেতার নাম ভোরের পাতার হাতে এসেছে। তাদের মধ্যে ১৯ জনের নাম আগেই প্রকাশ করেছিল দৈনিক ভোরের পাতা। সেই তালিকায় নতুন করে যোগ হয়েছেন আরো ১৬ জন। 

পুরোনো ১৯ জন বিতর্কিত নেতার মধ্যে যারা পদশূণ্য হচ্ছেন বলে মোটামুটিভাবে চূড়ান্ত তালিকায় ঠাঁই পেয়েছেন তারা হচ্ছেন:সহ-সভাপতি সৃজন ভূঁইয়া, সহ-সভাপতি আবু সাঈদ, সহ সভাপতি আরেফিন সিদ্দিকী সুজন,  সহ সভাপতি মাহমুদুল হাসান, সহ সভাপতি বরকত হোসেন হাওলাদার, সহ সভাপতি আমিনুল ইসলাম বুলবুল, দপ্তর সম্পাদক আহসান হাবীব, সহ-সভাপতি সাদিক খান, আন্তজার্তিক বিষয়ক উপ সম্পাদক ফুয়াদ হাসান, সহ-সভপতি জিয়ান আল রশিদ, সহ-সভাপতি তারিকুল ইসলাম মোমিন, সহ সম্পাদক আনজুমান  আরা আনু, সহ-সম্পাদক সামিহা সরকার, গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক উপ  সম্পাদক সুশোভন অর্ক, গণযোগাযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক উপ  সম্পাদক নাজমুল হুদা সুমন,  গণযোগযোগ ও উন্নয়ন বিষয়ক উপ সম্পাদক মোহাম্মদ হোসাইন, সহ-সম্পাদক তানভীর আবদুল্লাহ।  এই ১৭ জন ছাড়াও বিদ্রোহী হিসাবে আন্দোলনে বিতর্কিত ভূমিকা রাখার কারণে দুইজন পদপ্রাপ্ত নেতার পদ শূণ্য করা হয়েছে বলে মোটামুটি নিশ্চিত হওয়া গেছে। 

এদিকে নতুন করে যে ১৬ জন বিতর্কিত তালিকায় যোগ হয়েছেন তারা হচ্ছেন, ছাত্রলীগের নতুন কমিটির কৃষি বিষয়ক উপ সম্পাদক মিয়া মোহাম্মদ রুবেল,সহ-সম্পাদক  মেহেদী হাসান রাজু , সহ-সভাপতি মাজহারুল ইসলাম মিরাজ, স্বাস্থ্য বিষয়ক ‍উপ সম্পাদক ডা. শাহজালাল, সহ-সভাপতি তরিকুল ইসলাম মমিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোর্শেদুল হাসান রুপন, সহ-সম্পাদক  ফারজানা ইসয়ামিন রাখি, সহ-সভাপতি তৌহিদুর রহমান পরশ, ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক উপ সম্পাদক সালেকুর রহমান শাকিল, সহ-সভাপতি আলিমুল হক, সহ-সভাপতি মাজহারুল ইসলাম শামীম, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বিষয়ক সম্পাদক আসিফ ইকবাল অনিক, আপ্যায়ন বিষয়ক উপ সম্পাদক শাহরিয়ার মাহমুদ রাজু, সহ-সভাপতি কামাল খান, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় বিষয়ক উপ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম সাকিব এবং সহ-সম্পাদক রেজাউল করিম। 

এই ৩৫ জনের বিরুদ্ধে সংগঠনের গঠনতন্ত্র বিরোধী নানাবিধ অভিযোগ চূড়ান্তভাবে প্রমাণ হওয়ায় তারা পদশূণ্য হওয়ার তালিকায় এসেছেন বলে নিশ্চিত হয়েছে ভোরের পাতা। দায়িত্বপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগ নেতাদের সঙ্গে কথা বলেই তালিকায় তাদের নাম রয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে। তবে অভিযুক্তদের মধ্যে যেকেউ তাদের নিদোর্ষ প্রমাণ করতে পারলে অবশ্যই বিষয়টি বিবেচনা করা হবে। এক্ষেত্রে মোট কতজনের পদ শূণ্য ঘোষণা করা হবে তা চূড়ান্তভাবে নির্ধারণ করবেন প্রধানমন্ত্রী ও ছাত্রলীগের সর্বোচ্চ অভিভাবক শেখ হাসিনা। যাকে ছাত্রলীগের পরিপূর্ণ গঠনতন্ত্র হিসাবে মেনে নেয়া হয়েছে। সব সিদ্ধান্ত তিনিই দিবেন। তারপর ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী আনুষ্ঠানিভাবে আওয়ামী লীগের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করে নাম প্রকাশ করবেন এবং পদ শূণ্য ঘোষণা করবেন। 

পরবর্তীতে যোগ্য ও ত্যাগীদের যাচাই বাছাই করে সেই শূণ্যপদগুলোতে পদায়ন করা হবে বলেও নিশ্চিত করেছে ছাত্রলীগের শীর্ষ দুই নেতা শোভন ও রাব্বানী।

Ads
Ads