'সংবাদকর্মীদের নবম ওয়েজ বোর্ডের সুপারিশ বাস্তবায়ন হবে'

  • ৩০-মে-২০১৯ ০৩:০৬ অপরাহ্ন
Ads

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

জুনের মধ্যে সংবাদকর্মীদের নবম ওয়েজ বোর্ডের সুপারিশ চূড়ান্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে কমিটির বৈঠক শেষে মন্ত্রী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

কাদের বলেন, ‘নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ডের রোয়েদাদ বাস্তবায়নের বিষয়ে আলাপ-আলোচনা করেছি। আসলে বিষয়টি আরো আগেই আমরা সমাধানে যেতে পারতাম। আরো আগেই আমরা ঘোষণা দিতে পারতাম। আমাকে সভাপতি করার পরপরই আমি একটি মিটিং করার সুযোগ পেয়েছিলাম। সেদিন আমরা নোয়াবের প্রতিনিধিদের সঙ্গে মূলত আলোচনা করেছি। এর পর পরই আমি অসুস্থ হয়ে পড়ি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা একটি বিষয়ে ঐক্যমত পোষণ করেছি- এই বিষয়টিকে আর ঝুলিয়ে রাখা সমীচীন হবে না। যত দ্রুত সম্ভব আমরা সমাধান করে সবার কাছে মোটামুটি গ্রহণযোগ্য একটা ঘোষণা দেব। নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ডের বিষয়ে আমাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাব।’

‘আমরা ঠিক করেছি ঘোষণার আগে স্টেক-হোল্ডারদের সঙ্গে যৌথ একটা সভা আমরা করব। বোর্ড সদস্যদের উপস্থিতিতে সেই যৌথ সভাটি ১২ জুন বেলা ১১টায় তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে হবে। সেদিন সব পক্ষের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে আমরা একটা সিদ্ধান্তে পৌঁছাব’ বলেন মন্ত্রিসভা কমিটির আহ্বায়ক।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘জুন মাসের মধ্যে, এই অর্থবছরের মধ্যে এই রোয়েদাদ বাস্তবায়ন সম্পর্কিত আমাদের ঘোষণা পেশ করব।’

সংবাদকর্মীদের বেতন-ভাতা সর্বোচ্চ ৮৫ শতাংশ বাড়ানোর সুপারিশ করেছে নবম ওয়েজ বোর্ড, যা গত বছরের ৩ ডিসেম্বর মন্ত্রিসভা বৈঠকে উপস্থাপন করা হয়। ওই দিনই নতুন এই বেতন কাঠামো পরীক্ষা করে বাস্তবায়নের সুপারিশ দিতে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূরকে আহ্বায়ক করে পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট মন্ত্রিসভা কমিটি গঠন করা হয়। নতুন সরকার গঠিত হলে গত ২১ জানুয়ারি মন্ত্রিসভা বৈঠকে ‘নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড রোয়েদাদ, ২০১৮’ পরীক্ষায় ইতোপূর্বে গঠিত মন্ত্রিসভা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। পুনর্গঠিত ৭ সদস্যের মন্ত্রিসভা কমিটির আহ্বায়ক করা হয় ওবায়দুল কাদেরকে।

মন্ত্রিসভা বৈঠকে নবম ওয়েজ বোর্ডের সুপারিশ উপস্থাপনের পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেছিলেন, ‘ওয়েজ বোর্ডে প্রথম তিনটি গ্রেডে ৮০ শতাংশ ও শেষের দিকে তিনটি গ্রেডে সর্বোচ্চ ৮৫ শতাংশ বেতন বাড়ানোর সুপারিশ করেছে। যে সুপারিশ আসছে তারা (কমিটি) সেটা পর্যালোচনা করে হয়তো একটা নির্ধারণ করবেন।’

ওবায়দুল কাদেরের সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ, শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান, তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান।

গত ৪ নভেম্বর সচিবালয়ে তখনকার তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর কাছে ‘নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ড রোয়েদাদ ২০১৮’ সুপারিশমালা জমা দেন বোর্ডের চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. নিজামুল হক।

সংবাদপত্র ও বার্তা সংস্থার কর্মীদের জন্য নতুন বেতন কাঠামো নির্ধারণের জন্য গত বছরের ২৯ জানুয়ারি নবম মজুরি বোর্ড গঠন করা হয়। ১৩ সদস্যের এই বোর্ডে চেয়ারম্যান সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. নিজামুল হক। এছাড়া সংবাদপত্র প্রতিষ্ঠানের মালিকপক্ষ এবং সাংবাদিক ও সংবাদপত্র কর্মচারী বা শ্রমিকদের প্রতিনিধিত্বকারী সমসংখ্যক প্রতিনিধিও ছিলেন ওয়েজ বোর্ডে।

সরকারের কাছে সুপারিশ দিতে বোর্ডকে ছয় মাস সময় দেয়া হয়েছিল। পরে নবম মজুরি বোর্ডের মেয়াদ আরো তিন মাস বাড়ানো হয়।

গত বছরের ১১ সেপ্টেম্বর নবম বেতন কাঠামো চূড়ান্ত করার আগে প্রতি মাসের মূল বেতনের উপর ৪৫ শতাংশ হারে মহার্ঘ ভাতা ঘোষণা করে সরকার। এ মহার্ঘ ভাতা ২০১৮ সালের ১ মার্চ থেকে কার্যকর ধরা হয়। এ মহার্ঘ ভাতা বোর্ডের নির্ধারিত সামগ্রিক বেতন কাঠামোর সঙ্গে সমন্বিত হবে।

নবম ওয়েজবার্ডের বৈধতা নিয়ে আদালতে একটি রিটও রয়েছে সংবাদপত্র মালিকদের সংগঠন নিউজপেপারস ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (নোয়াব)।

 

/কে 

Ads
Ads