ছাত্রলীগের আইন সম্পাদক শাহাদাতকে নিয়ে ষড়যন্ত্র করছে একটি মহল

  • ১৬-মে-২০১৯ ০৮:০৪ অপরাহ্ন
Ads

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নব গঠিত পূর্ণাঙ্গ কমিটির আইন সম্পাদক হিসাবে দায়িত্ব পেয়েছেন ফুয়াদ হোসেন শাহাদাত। কমিটি প্রকাশের পর থেকেই শুরু হয়েছে সেই কথিত সিন্ডিকেটের নানা অপপ্রচার। সেই থেকে বাদ পড়েননি ক্লিন ইমেজের এই ছাত্রলীগ নেতাও। 

প্রাচ্যের অক্সফোর্ডখ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষার্থী শাহাদাতের বিরুদ্ধে বিয়ের অভিযোগ এনে ভুয়া একটি প্রতিবেদন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়েছে একটি মহল। বিষয়টি ফুয়াদ হোসেন শাহাদাতের দৃষ্টিগোচর তিনি ভোরের পাতার সিনিয়র প্রতিবেদক উৎপল দাসের কাছে জানতে চান, ‌'দাদা, আমি যদি বিয়ে করতাম তাহলে বড় ভাই হিসাবে অবশ্যই আপনাকে দাওয়াত দিতাম। আমি যদি বিবাহিত এটা প্রমাণ করতে না পারেন তবে কিন্তু ফেসবুকে এই ভুয়া তথ্য প্রকাশের জন্য মামলা খাবেন, নয়তো আমার বউ এনে দেন।' 

প্রতি উত্তরে উৎপল দাস জানান, শাহাদাত, প্লিজ...বিষয়টি আমি যার কাছ থেকে পেয়েছি, সেটার সতত্যা যাচাই না করেই পোস্ট করেছি। তবে খোঁজ নিয়ে জানাচ্ছি।' 

এরপর প্রায় ২ ঘন্টা পর নির্ভরযোগ্য কয়েকটি মহলে প্রতিবেদনটি নিয়ে কথা বলে ভোরের পাতার সিনিয়র প্রতিবেদক নিশ্চিত হন যে, এটি একটি ভুয়া প্রতিবেদন। যেখানে উদ্দেশ্যমূলকভাবে ছাত্রলীগে পদপ্রাপ্তদের অনেকের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তোলা হয়েছে। এরপর শাহাদাতকে ফোন করে উৎপল দাস দুঃখ প্রকাশ করেন এবং নিজের ফেসবুক ওয়াল থেকে সেই স্ট্যটাসটি ডিলিট করে দেন। 

ছাত্রলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ফুয়াদ হোসেন শাহাদাতের বিষয়ে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তার পুরো পরিবার আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত। পিতা সাবেক বিমান কর্মকর্তা আওয়ামী লীগেরই একজন সমর্থক এবং তার পরিবারের অন‌্য সদস্যরা মিরপুরের আওয়ামী লীগ রাজনীতির কর্ণধারদের অন্যতম। 
এছাড়া শাহাদাত দীর্ঘ সময় ধরে ছাত্রলীগের রাজনীতি করে আসছেন ক্লিন ইমেজ নিয়ে। এর আগে কেউ কোনোদিন তার রাজনৈতিক আদর্শ থেকে শুরু করে কোনো নেতিবাচক অভিযোগ তুলতে পারেনি। এর আগেও ছাত্রলীগের বিভিন্ন পদের মধ্যে সাংগঠনিক সম্পাদক, সলিমুল্লাহ মুসলিম হল। সাবেক সাধারণ সম্পাদক বিজয় একাত্তর হল। সাবেক উপ গ্রন্থনা ও প্রাকশনা সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সাংসদের দায়িত্ব পালন করেছেন। 

Ads
Ads