বঙ্গোপসাগরে ‘ফেনি’, কমবে গরম

  • ২৬-Apr-২০১৯ ০৬:৫৪ অপরাহ্ন
Ads

 

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

নিরক্ষীয় ভারত মহাসাগর ও এর সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত সুস্পষ্ট লঘুচাপটি ঘনীভূত হয়ে নিম্নচাপে পরিণত হয়ে গেছে।  যা ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। ইতিমধ্যে ঝড়টির নাম ‘ফেনি’ দেয়া হয়েছে।

শুক্রবার (২৬ এপ্রিল) দুপুর ১২টায় চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর থেকে দুই হাজার ১৭০ কিলোমিটার দক্ষিণে, কক্সবাজার সমুদ্র বন্দর থেকে দুই হাজার ৮৫ কিলোমিটার দক্ষিণে, মংলা সমুদ্র বন্দর থেকে দুই হাজার ১৮৫ কিলোমিটার দক্ষিণে, পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে দুই হাজার ১৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল।

আবহাওয়া অফিস জানিয়েছে, নিম্নচাপটি আরো শক্তিশালী হতে পারে এবং অগ্রসর হতে পারে উত্তর-পশ্চিম দিকে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা গতিবেগ ঘন্টায় ৪০ কিলোমিটার। এটা দমকা ও ঝড়ো হাওয়া আকারে ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের কাছে সাগর বেশ উত্তাল। চট্টগ্রাম, কক্সাবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তি নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে আবহাওয়া অফিস থেকে।

নিম্নচাপটি শেষ পর্যন্ত ঘুর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে বলে আবহাওয়াবিদেরা জানিয়েছেন। এটা আগামী মে মাসের ৪ থেকে ৫ তারিখের মধ্যে উপকূলে আঘাত হানতে পারে। উপকূলে উঠার আগ মুহূর্তে এর গতিবেগ হতে পারে ঘন্টায় ১১৫ থেকে ১২০ কিলোমিটার।

এখন পর্যন্ত এটা কোথায় যাবে এবং কোন উপকূলে আঘাত করবে তা পরিস্কার নয়। তবে আবহাওয়াবিদেরা ধারণা করছেন যে এটা হয়তো বাংলাদেশ অথবা মিয়ানমার উপকূলে অথবা উভয় উপকূল দিয়ে স্থলভাগে উঠে আসতে পারে। ভারতীয় আবহাওয়া অফিস অবশ্য তামিলনাড়ু থেকে মিয়ানমার উপকূল যে কোনো উপকূলে ঘূর্ণিঝড়টি আঘাত হানতে পারে বলে জানিয়েছে।

 

/কে 

Ads
Ads