বিতর্ক না থাকা সত্ত্বেও বাদ পড়েছেন তাঁরা

  • ১১-জানুয়ারী-২০১৯

:: ভোরের পাতা ডেস্ক ::

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মন্ত্রী হিসেবে শপথ নেয়ার জন্য ৪৬ জনের নাম ঘোষণা করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এর মধ্যে মন্ত্রী ২৪ জন, প্রতিমন্ত্রী ১৯ জন ও উপমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেবেন ৩ জন।

এবারের মন্ত্রিসভায় পুরনো কয়েকজন মন্ত্রী যেমন দায়িত্ব পেয়েছেন তেমনি নতুন অনেক সদস্যও জায়গা করে নিয়েছেন। তবে কোনো বিতর্ক না থাকা সত্ত্বেও বাদ পড়েছেন বেশ কয়েকজন পুরনো মন্ত্রী।

বেগম মতিয়া চৌধুরী

এবারের মন্ত্রিসভায় জায়গা পাননি আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য বেগম মতিয়া চৌধুরী। ২০০৮ এবং ২০১৪ সালে মতিয়া চৌধুরী কৃষি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন। নিষ্ঠাবান এবং সৎ মন্ত্রী হিসেবে তার সুনাম রয়েছে। কিন্তু তবুও তার বাদ পড়াটা এবার চমক হয়েই এসেছে।

আসাদুজ্জামান নূর

আসাদুজ্জমান নূর দশম জাতীয় সংসদে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। দেশজুড়ে ব্যাপক জনপ্রিয় এই সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব মন্ত্রী হিসেবেও দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন। কোনো বিতর্কে তার নাম না জড়ালেও এবারের মন্ত্রিসভা থেকে বাদ পড়েছেন তিনি।

মেহের আফরোজ চুমকি

নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন মেহের আফরোজ চুমকি। তিনিও বেশ দক্ষতার সঙ্গে তার দায়িত্ব পালন করেছেন। তাকে নিয়ে কোনো বিতর্ক না থাকলেও এবারের মন্ত্রিসভা থেকে বাদ পড়েছেন তিনি।

ইসমত আরা সাদেক

দশম জাতীয় সংসদে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ছিলেন ইসমত আরা সাদেক। তিনিও বিতর্কের ঊর্ধ্বে থেকেই তার দায়িত্ব পালন করেছেন। তবে এবারের মন্ত্রিসভায় জায়গা হারিয়েছেন তিনি।

মির্জা আজম

মির্জা আজম সর্বশেষ মন্ত্রিসভায় পাট মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেছিলেন। বেশ বিচক্ষণতার সঙ্গেই তিনি তার কাজ সামলেছেন বলে জানা যায়। কিন্তু এবারের মন্ত্রিসভায় জায়গা হয়নি তার।