নির্বাচিত সংবাদ

শেখ হাসিনাকে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ খেতাবে ভূষিত করলো ব্রিটিশ মিডিয়া

:: ভোরের পাতা অনলাইন ::

মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে নির্যাতনের শিকার রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে আশ্রয় দেয়ায় এরই মধ্যে বিশ্বের কাছে প্রশংসা পেয়েছে বাংলাদেশ। এবার ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’(মানবতার জননী) বলে অখ্যায়িত করেছে।

গেল মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রী। গত ২৫ বছরের মধ্যে প্রথমবার কোনো সরকারপ্রধান রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে এলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প পরিদর্শন ও তাদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন। কথাও বলেন, তাদের দুর্দশার কথাও শুনেন এবং আবেগে আপ্লুত হন।

এ নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে ব্রিটেন ভিত্তিক গণমাধ্যম চ্যানেল ফোর। চ্যানেলটির এশিয়া প্রতিনিধি জনাথান মিলার তার প্রতিবেদনে তুলে ধরেন ক্যাম্পে থাকা রোহিঙ্গাদের মানবেতর জীবনের কিছু অংশ। ওই প্রতিবেদনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ‘মাদার অব হিউম্যানিটি’ বলে ভূষিত করা হয়।

তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের মানবিক কারণে আশ্রয় দেয়া হয়েছে৷ মিয়ানমার সরকারকে অবশ্যই তাদের ফেরত নিতে হবে৷ আশ্রয়ের এই সাময়িক সময়ে বাংলাদেশ সরকার সাধ্যমতো শরণার্থীদের সহায়তা করবে৷

তিনি মিয়ানমার সরকারকে রোহিঙ্গাদের ওপর অত্যাচার-নির্যাতন বন্ধেরও আহ্বান জানান৷

গেলো মাসে রোহিঙ্গা বিদ্রোহীদের সশস্ত্র সংগঠন আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মি (এআরএসএ) বেশ কয়েকটি পুলিশ ক্যাম্পে হামলা চালায়। এতে ১২ জন পুলিশ সদস্য নিহত হয়।

পরে দেশটির রাখাইন প্রদেশে সেনা অভিযানে রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের কয়েকশ মানুষ নিহত হন। ধর্ষিত হন অনেক নারী। গ্রামের পর গ্রাম আগুন লাগিয়ে দেয় দেশটির সরকারি বাহিনী।

এরপর লাখো রোহিঙ্গা শিশু-নারী-পুরুষ নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য বাংলাদেশের দিকে আসতে থাকে। এদের অনেকেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ছোট ছোট নৌকায় করে নদী ও সমুদ্র পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে। প্রতিকূল আবহাওয়ার মধ্যে পড়ে বেশ কয়েকটি নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে। এতে শতাধিক রোহিঙ্গা নিহত হন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

নির্বাচিত সংবাদ | আরো খবর