রাজনীতি

বন্যার্তদের সহায়তায় ভাগে কুরবানি দেওয়ার আহ্বান জাকিরের

:: ঢাবি প্রতিনিধি ::

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বন্যায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৬৭। উত্তরবঙ্গের ভয়াবহ বন্যাকে কেন্দ্র করে সুযোগ সন্ধানীরা যখন ব্যস্ত বিভিন্ন ফায়দা লুটতে তখন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন ব্যস্ত বন্যার্তদের দুঃখ কষ্ট লাঘবের উপায় খুঁজতে। চলমান বন্যার ক্ষতিগ্রস্থ জেলার দুর্গত মানুষের পাশে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। সম্প্রতি বন্যার্তদের দুঃখ লাঘবের জন্য তিনি ফেসবুকে সমাজের বিত্তবানদের দৃষ্টি আকর্ষন করে লিখেছেন, ‘ যারা কোরবানী ঈদে একটা আস্ত পশু কোরবানী দেয়ার স্থির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তাদের অনুরোধ করছি আস্ত পশু একাই নয় আরও ৩/৬ জনের সাথে ভাগে দিন। আর এটা করলে যে টাকাটা বাঁচবে সে টাকাটা উত্তরে ও ক্ষতিগ্রস্থ জেলায় বন্যা দুর্গতদের কাছে পাঠিয়ে দিন’।

বাংলার নির্যাতিত, নিপীড়িত, শোষিত, অবহেলিত, অভাবী মানুষকে মুক্ত করার যে উদ্দ্যেশ্যে নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি যে ছাত্রলীগ প্রতিষ্টা করেছিলেন সেই ছাত্রলীগ অতীতের ন্যয় আজও তাঁরই নির্দেশিত পথে চলছে। যার উৎকৃষ্ট উদাহরণ বর্তমান কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন। সুবিধাবঞ্চিত, অবহেলিত, বিপদাপন্ন, ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের পাশে থাকা যেন তার প্রধান উদ্দেশ্য।

মানবতার সেবাই তার একমাত্র ধ্যান। স্বেচ্ছায় রক্তদান থেকে শুরু করে পথশিুদের নতুন পোশাক, শিক্ষা উপকরণ, বন্যার্তদের সাহায্য, চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন কত কিছুই না করে চলেছেন। দুর্গত বন্যাকবলিত অসহায় মানুষের পাশে থাকাটা ছাত্রলীগের পবিত্র দায়িত্ব বলে মনে করেন তিনি।

ছাত্রলীগ সূত্রে জানা গেছে, বন্যাকবলিত জেলাগুলোতে স্ব স্ব জেলার ছাত্রলীগ এর নেতাকর্মীদেরকে ইতিমধ্যে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, সরকারের বিভিন্ন সংস্থা/প্রতিষ্ঠানের সাথে ঐক্যবদ্ধভাবে বন্যাকবলিত মানুষগুলোর পাশে গিয়ে সহযোগিতার হাত বাঁড়িয়ে দেবার জন্য এবং ছাত্রলীগ সেটি দায়িত্বশীলতার সাথেই পালন করে যাচ্ছে। জাতির যে কোন সংকট মুহূর্তে ছাত্রলীগ বাংলার মানুষের পাশে ছিল, আজও ছাত্রলীগ বন্যাকবলিত মানুষগুলোর পাশেই আছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

রাজনীতি | আরো খবর