অর্থনীতি
শুক্রবার, ১৮ আগস্ট ২০১৭ ৩ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

ফিলিপিন্সে মামলার সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ সম্ভব না : অর্থমন্ত্রী

:: ভোরের পাতা অনলাইন ::

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ না করার জন্য এবার ফিলিপিন্সের মামলাকে কারণ দেখালেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, “তদন্ত প্রতিবেদন আমরা প্রকাশ করতে পারছি না। ফিলিপিন্সে মামলার সুরাহা না হওয়া পর্যন্ত এটি সম্ভব না।”

শনিবার (০৫ আগস্ট) সিলেট সিটি করপোরেশন আয়োজিত সিলেট নগরের বর্জ্য ব্যবস্থাপানা নিয়ে একটি সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে অর্থমন্ত্রী এ কথা বলেছেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ হলো না কেন, এমন প্রশ্নের পরিপ্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘হ্যাঁ এটা করতে পারি নাই। ফিলিপাইনে একটা কেস আছে। কেস থাকায় রিজার্ভ চুরির ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করা যাচ্ছে না।’

গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় ওই বছরের ১৫ মার্চ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পক্ষে প্রতিষ্ঠানটির হিসাব ও বাজেট শাখার যুগ্ম পরিচালক জুবায়ের বিন হুদা বাদী হয়ে মতিঝিল থানায় একটি মামলা করেন। মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ এবং তথ্য ও প্রযুক্তি আইনে অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের আসামি করা হয়।

সাইবার জালিয়াতির মাধ্যমে চুরি যাওয়া ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং করপোরেশনের (আরসিবিসি) মাধ্যমে চলে যায় দেশটির ক্যাসিনোতে। এই অর্থের দেড় কোটি ডলার ইতিমধ্যে ফেরত এসেছে, বাকি অর্থ উদ্ধারে চেষ্টা চালাচ্ছে বাংলাদেশ।

পানামা পেপারস কেলেঙ্কারিতে যাদের নাম এসেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেন, বিষয়টি দুদক তদন্ত করছে। তবে পানামা পেপারসের ফাঁস হওয়া তথ্য কিছুটা অতিরঞ্জিত করা হয়েছে।

সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় মুহিতের সঙ্গে ছিলেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, সিলেটের জেলা প্রশাসক রাহাত আনোয়ার, সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ, জাতিসংঘের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি এ কে আব্দুল মোমেন, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন প্রমুখ।

 

অনলাইন/এইচটি 

অর্থনীতি | আরো খবর