পৃথিবীতে থেকে প্রথম মঙ্গলযাত্রী হবে কিশোরী অ্যালিসা!

মঙ্গলবার , ১০ জানুয়ারী ২০১৭, ১২:১১ অপরাহ্ন

:: ভোরের পাতা অনলাইন ::

বয়স মাত্র পনের। কিন্তু এই পনের বছর বয়সেই অ্যালিসা কারসন ইতিহাসে একটা নতুন দিগন্ত তৈরি করেছেন। পৃথিবী থেকে সর্বপ্রথম মঙ্গল গ্রহের নভোচারী হওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের লুইজিয়ানার ১৫ বছর বয়সী কিশোরী অ্যালিসা কারসন প্রশিক্ষণ নিচ্ছে। ২০৩৪ সালে মঙ্গলের গ্রহের প্রথম নভোচারী হিসেবে মঙ্গলে যাবে অ্যালিসা।হতে যাচ্ছেন মঙ্গলের বুকে প্রথম মানুষ।

নাসার মুখপাত্র পল ফোরম্যান বিবিসিকে জানিয়েছেন, অ্যালিসার মতো মানুষকে খুব গুরুত্বের সঙ্গে দেখে নাসা। মঙ্গল মিশনে যাওয়ার জন্য একদিন যে নভোচারীর প্রয়োজন হবে অ্যালিসা এখন ঠিক সেই বয়সে রয়েছে। সে এখন একজন নভোচারী হওয়ার পথে সঠিক পদক্ষেপ নিয়েই এগিয়ে যাচ্ছে।

অ্যালিসার বাবা তার মেয়ের মঙ্গলে যাওয়ার ব্যাপারে খুবই আশাবাদী।অ্যালিসার বাবা ব্রেট মেয়ের আগ্রহের বিষয়টি সমর্থন দিয়ে তাকে অনুপ্রেরণা দিচ্ছেন। ২০৩৪ সালে তাঁর মেয়ে মঙ্গল গ্রহে গিয়ে নিজের স্বপ্নপূরণ করতে পারবে বলেও আশাবাদী তিনি।

অ্যালিসার বাবা বলেন, ঝুঁকি নিয়েই যদি স্বপ্নপূরণ করার একমাত্র পথ হয়, তবে সেই ঝুঁকি নিতে অ্যালিসা প্রস্তুত। আমার মেয়ের মঙ্গলে যাওয়ার আকাঙ্ক্ষাই তাকে মঙ্গলে নিয়ে যাবে। এজন্য অ্যালিসা যে পরিশ্রম করছে তা অবশ্যই প্রশংসার দাবি রাখে।

মঙ্গলে যাওয়া প্রসঙ্গে অ্যালিসা বলেন, ‘আমি মঙ্গলে যেতে চাই। কারণ এটি এমন একটি স্থান, যেখানে কেউই আগে কখনো যায়নি। আমিই প্রথম সেই পদক্ষেপটি নিতে চাই।

অ্যালিসার মঙ্গলে যাওয়ার স্বপ্নটা শুরু হয় মাত্র তিন বছর বয়সে। সেই বয়সে তার এই অনুপ্রেরণা আসে নিকলেডন নামক একটি অ্যানিমেটেড কার্টুন দেখে। তার বাবাও মেয়েকে সমানে অনুপ্রেরণা দিতে থাকেন। নিজেই মেয়েকে নিয়ে যান যুক্তরাষ্ট্রের স্পেস ক্যাম্পে ২০০৮ সালে। শুরু হয় অ্যালিসার প্রশিক্ষণ। সে প্রথম ব্যক্তি যে নাসার তিনটি মহাকাশ ক্যাম্পে যাওয়ার সুযোগ পেয়েছে।

১৫ বছর বয়সী অ্যালিসার মঙ্গল গ্রহে যাওয়ার এই প্রত্যয় ইতিমধ্যে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক মহাকাশ সংস্থার নজর কেড়েছে। ইতিমধ্যে নেদারল্যান্ডসভিত্তিক বেসরকারি মহাকাশ সংস্থা মার্স-ওয়ান তাকে মঙ্গলে যাওয়ার বিষয়ে প্রেজেন্টেশন দিতেও বলেছে।

২০৩৪ সালে মঙ্গল মিশনের লক্ষ্যেই প্রস্তুতি অ্যালিসার। সবকিছু ঠিক থাকলেই অ্যালিসাই হতে যাচ্ছেন মঙ্গলের প্রথম মানুষ। মঙ্গলে গিয়ে আর ফিরে আসতে পারবে না এমন কথা জেনেই অ্যালিসা সামনের দিকে এগিয়ে চলেছে।

 

ভোরের পাতা/ই

WARNING: Assigned ad is expired! Extend the term or Delete it.
WARNING: Assigned ad is expired! Extend the term or Delete it.