নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের প্রস্তাব জামায়াতের

মঙ্গলবার , ১০ জানুয়ারী ২০১৭, ৮:১৯ অপরাহ্ন

:: নিজস্ব প্রতিবেদক ::

নতুন নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনের জন্য রাষ্ট্রপতি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে ধারাবাহিক সংলাপ করছেন। দলগুলো ইসি গঠনে তাদের নিজেদের প্রস্তাবনা রাষ্ট্রপতির কাছে তুলে ধরছেন।

রাষ্ট্রপতির ধারাবাহিক এই সংলাপে আমন্ত্রণ তালিকায় নেই যুদ্ধাপরাধে অভিযুক্ত জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ। কিন্তু তাই বলে তারা বসে নেই। এজন্য তারা বেছে নিয়েছে গণমাধ্যম। মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারী) দুপুরে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদ জানান, নতুনভাবে নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনের পরপরই জাতীয় ঐকমত্যের ভিত্তিতে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ বা নির্দলীয় কেয়ারটেকার সরকারের রূপরেখা তৈরির আহ্বান জানাচ্ছে জামায়াতে ইসলামী। জামায়াতের আমির মকবুল আহমাদ রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের কাছে এ আহ্বান জানিয়েছেন।

জামায়াতের আমির বলেন, সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণের জন্য একটি সুষ্ঠু নির্বাচন করতে ঐকমত্যের ভিত্তিতে নিরপেক্ষ ইসি গঠনই যথেষ্ট নয়। অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও বিশ্বাসযোগ্য নির্বাচন জাতিকে উপহার দিতে নির্বাচনকালীন একটি নিরপেক্ষ ও নির্দলীয় সরকারের প্রয়োজন। এজন্য ইসি পুনর্গঠনের পরপর নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ বা নির্দলীয় কেয়ারটেকার সরকারের রূপরেখা তৈরি করতে হবে।

জামায়াতের প্রস্তাব অনুযায়ী, সংবিধানের ১১৮-১২৬নং অনুচ্ছেদের আলোকে নিরপেক্ষ, যোগ্য ও দায়িত্ব পালনে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ একটি সিলেকশন কমিটি গঠন করা আবশ্যক। এ কমিটিতে দুজন দক্ষ নারী সদস্য নিয়োগের প্রস্তাব করেছে তারা। এ ছাড়া প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও চারজন নির্বাচন কমিশনার রাখা হবে।

প্রসঙ্গত, ১৯ ডিসেম্বর জামায়াতের আমির মকবুল সংলাপের সুযোগ চেয়ে রাষ্ট্রপতিকে একটি চিঠি দেন। চিঠি প্রসঙ্গে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন জানিয়েছিলেন, তারা ১৯ ডিসেম্বরই জামায়াতের চিঠি পেয়েছেন। নির্বাচন কমিশনে (ইসি) নিবন্ধন স্থগিত থাকায় দলটিকে ডাকা হয়নি।

 

অনলাইন/কে

WARNING: Assigned ad is expired! Extend the term or Delete it.
WARNING: Assigned ad is expired! Extend the term or Delete it.