রুপসী বাংলা
শুক্রবার, ১৮ আগস্ট ২০১৭ ৩ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

দৌলতপুরে ১টি বিদ্যালয় অন্যত্র পুর্নস্থাপনের জন্য নগদ চার লাখ টাকা প্রদান

:: মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি ::

বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আলহাজ্ব এস.এম জাহিদ বলেছেন- আমি নদী ভাঙ্গন চরাঞ্চলের সাধারন পরিবারের একজন ছেলে এই জন্য চরাঞ্চলের নদী ভাঙ্গন এলাকার মানুষের দূ:খ দুরদর্শা দেখলে আমার বিবেককে নারা দেয় তাই ছুটে আসি তাদের পাশে দাঁড়াতে। দল যদি আমাকে আগামীতে মনোনয়ন দেয় ও আপনাদের ভালবাসা এবং ভোটে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হতে পারি প্রথম কাজ হবে নদী ভাঙ্গন রোধে ব্যবস্থা গ্রহন করা ।

তিনি আরো বলেন- দেশ ও জাতির কল্যানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষে প্রধান মন্ত্রী ও দেশ রত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা জনগনের কাজ করে যাচ্ছে ।

তিনি আরো বলেন- প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা জনগনের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য ঘিওর-দৌলতপুর-শিবালয় উপজেলায় লক্ষ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয় । আপনারা যাকে ভোট দিয়ে জনপ্রতিনিধি সংসদ সদস্য নির্বাচিত করেছেন আর জনগনের সেই বরাদ্দকৃত টাকা ও তার আত্মীয় স্বজন ভুয়া প্রকল্প দিয়ে ভাগভাটরা করে নিজেদের উন্নয়ন করছে। আপনারা অনেক নেতা দেখেছেন আমাকে একবার সুযোগ দিলে আমি বঙ্গবন্ধুর আর্দশকে কাজে লাগিয়ে নদী ভাঙ্গন ও চরাঞ্চলের খেটে খাওয়া মানুষের সেবা ও দেশের উন্নয়নের কাজ করার চেস্টা করবো। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য মানুষের পাশে থেকে কাজ করতে চাই। আগামী সংসদ নির্বাচনে সকলের দোয়া ও সমর্থন কামনা করেন।

তিনি বলেন-আমি নির্বাচিত হলে জনগনের নায্য অধিকার ফিরিয়ে দেব আমি জনগনকে দিতে এসেছি নিতে আসেনি। আওয়ামীলীগের কর্মী ও সাধারন জনগনের ভোটের মাধ্যমে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে আগামীতে আবারও নৌকায় ভোট দিতে সকলের প্রতি আহবান জানান।

সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল কাদের এর সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- ঘিওর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য ও উপজেলা আওয়ামীলীগে সাবেক সাধারন সম্পাদক ফরিদ আহম্মেদ, জেলা আওয়ামলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক ভি.পি ফরহাদ হোসেন ,উপজেলা আওয়ামীলীগ শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এস,এম, মালেক ভান্ডারী, যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা জিয়াউল হক জিয়া, চকমিরপুর ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিক প্রমুখ ।

উল্লেখ্য মানিকগঞ্জের দৌলতপুর উপজেলার যমুনা নদীর পাড়ে অবস্থিত শতবর্ষী চরকাটারী সবুজ সেনা উচ্চ বিদ্যালয়। এ বিদ্যালয়ের ৪ টি ভবন যমুনা নদীর ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে গেছে।স্থানীয় বিদ্যালয় হিতৈশী, শিক্ষার্থী-অভিভাবক ও জনপ্রতিনিধিরা ভাঙ্গণ রোধে ব্যবস্থা গ্রহণ করেন। কিন্ত নদীর প্রবল করাল গ্রাসে বিদ্যালয় ভবন ও প্রাঙ্গণ নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। বিদ্যালয়টি নদীতে বিলীন হওয়ায় ১ হাজার ৫ শত কোমলমতি শিক্ষার্থীদের পড়াশুনা অনিশ্চিত হয়ে পড়ে।

বিদ্যালয়টির ছাত্র/ছাত্রীদের ও এলাকার সাধারন মানুষের কথা ভেবে এমন সময় এই মহান ব্যক্তি বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য আলহাজ্ব এস.এম জাহিদ নদী ভাঙ্গা মানুষের পাশে এসে দাড়িয়েছেন।

 

অনলাইন/এইচটি 

রুপসী বাংলা | আরো খবর