অর্থনীতি
শুক্রবার, ১৮ আগস্ট ২০১৭ ৩ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

এফবিসিসিআই নির্বাচন ১৪ মে মহিউদ্দিন-জসিম মুখোমুখি

:: অর্থনৈতিক প্রতিবেদক ::

২০১৭-২০১৯ মেয়াদে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআইর নেতৃত্ব আসার লড়াইয়ে পোশাক ব্যবসায়ী শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন ও প্লাস্টিক খাতের ব্যবসায়ী জসিম উদ্দীন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার ঘোষণা দিয়েছেন। ফলে ফেডারেশনের বর্তমান ও সাবেক এ দুই প্রথম সহসভাপতির ভোটের লড়াই বেশ জমজমাট হবে বলে আশা ব্যবসায়ীদের।

দেশের ব্যবসায়ীদের প্রধান নেতা হিসেবে কে আসছেন তা নিয়ে শুরু হয়ে গেছে আলোচনা। নানা জল্পনা-কল্পনাও চলছে ব্যবসায়ী মহলে। নতুন মেয়াদে এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি নির্বাচিত হবেন অ্যাসোসিয়েশন গ্রুপ থেকে। সে হিসেবে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেছেন দেশের দুই শীর্ষ স্থানীয় অ্যাসোসিয়েশনের ব্যবসায়ী নেতা বাংলাদেশ গার্মেন্ট ম্যানুফ্যাকচারারস অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিজিএমইএ) সাবেক সভাপতি ও

এফবিসিসিআইয়ের বর্তমান পরিচালনা কমিটির প্রথম সহসভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন এবং বাংলাদেশ প্লাস্টিক দ্রব্য প্রস্তুতকারক ও রপ্তানীকারক অ্যাসোসিয়েশনের (বিপিজিএমইএ) সভাপতি ও এফবিসিসিআয়ের সাবেক প্রথম সহসভাপতি মো. জসিম উদ্দিন।

এরই মধ্যে ঘোষণা করা হয়েছে নির্বাচনের তারিখ। সাবেক ডেপুটি স্পিকার আলী আশরাফের নেতৃত্বে গঠিত তিন সদস্যের নির্বাচনী বোর্ড নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। ১৪ মে অনুষ্ঠিত হবে পরিচালক পদে ভোট। আর নির্বাচিত পরিচালকরা প্রথম সহসভাপতি ও সহসভাপতি নির্বাচন করবেন ১৬ মে। এর আগে ১০ এপ্রিল পর্যন্ত পরিচালক পদে মনোনয়নপত্র গ্রহণ করার পর ২৩ এপ্রিল বৈধ মনোনয়নের তালিকা প্রকাশ করা হবে। আর প্রার্থী তালিকা নিয়ে কোনো ধরনের আপত্তি থাকলে ২৭ও ২৯ এপ্রিল শুনানি শেষে চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে ৩০ এপ্রিল। আর প্রার্থিতা তুলে নেওয়ার শেষ সময় ৬ মে নিধারণ করা হয়েছে।

সভাপতি প্রাথী দুজনই সরকারের আস্থাভাজন হওয়ায় কাউকে এককভাবে সমর্থন জানাবে না বলে বিশ্বস্তসূত্রে জানা গেছে। ফলে এবারের লড়াই জমার আশা করছেন ব্যবসায়ীরা। সাধারণ ব্যবসায়ীদের দাবি, ভোটের মাধ্যমে তাদের নেতা নির্বাচিত করতে পারলে ব্যবসাবাণিজ্য প্রসারে কাজ করবেন নেতারা। অতীতে যারা ব্যবসায়ীদের নেতা নির্বাচিত হয়েছেন তাদের অধিকাংশই নিজের আখের গোছানোর কাজে ব্যস্ত ছিলেন। তাই এবারের নির্বাচনে সরসরি ভোটের দাবি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগ থেকেই করে আসছেন ব্যবসায়ীরা।

সভাপতি প্রার্থিতার বিষয়ে শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, এফবিসিসিআই ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন। এর দায়িত্বে ব্যবসায়ীরা আমাকে দেখতে চায়। ব্যবসায়ীদের সাথে আমার দীর্ঘদিনের সম্পর্ক। মূলত তাদের চাওয়াতেই আমি নির্বাচনে এসেছি। যদি দায়িত্বে আসতে পারি এ সংগঠনকে আন্তর্জাতিক মানের সংগঠন হিসেবে গড়ে তুলব। কেউ যাতে বলতে না পারে ‘শুধু নামেই শীর্ষ সংগঠন’ সেই লক্ষ্যে কাজ করবো।

জানা গেছে, ২০১২ সালে এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি পদে নির্বাচন করার কথা ছিল জসিম উদ্দিনের। সে সময় কাজী আকরাম উদ্দিন আহমদ সরকারের উচ্চ পর্যায়ের পছন্দ থাকায় জসিম উদ্দিনকে অপেক্ষা করতে বলা হয়েছিল। গতবার সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন চেম্বার গ্রুপ থেকে। এবার তা অ্যাসোসিয়েশনের থেকে হওয়ার সিদ্ধান্ত রয়েছে।

এফবিসিসিআই দেশের এলাকাভিত্তিক চেম্বার ও পণ্যভিত্তিক অ্যাসোসিয়েশনগুলোর ফেডারেশন। এর পরিচালক পদের সংখ্যা ৫২। এর মধ্যে ২০টি পরিচালক পদ দেশের প্রধান প্রধান ২০টি ব্যবসায়ী সংগঠনের জন্য সংরক্ষিত থাকে। অন্যদিকে ৩২টি পরিচালক পদে সরাসরি ভোট দিতে পারেন ভোটাররা। পরে পরিচালকদের ভোটে সভাপতি ও সহসভাপতিরা নির্বাচিত হন।

এবার ভোট গ্রহণ করা হবে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে। সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভোটাররা ভোট দিতে পারবেন।

 

অনলাইন/কে

অর্থনীতি | আরো খবর